ইস্রাইলের সীমানায় সঙ্ঘর্ষের ফলে রবিবার, প্রাথমিক তথ্য অনুযায়ী, প্রায় ২০ জন প্যালেস্টাইনী নিহত হয়েছে, আহতদের সংখ্যা শত শত. হাজার হাজার প্যালেস্টাইনী ঐ দিন ইস্রাইলী ভূভাগে ঢোকার চেষ্টা করেছিল সিরিয়া, লেবানন, জর্ডান এবং গাজা অঞ্চল থেকে, এবং অনেকে তাতে সক্ষম হয়. ইস্রাইলী সৈন্যবাহিনী ও পুলিশ তাদের “সম্বর্ধনা জানায়” গুলি চালিয়ে এবং কাঁদুনে গ্যাস ব্যবহার করে. রবিবার ইস্রাইলীরা তাদের রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার ৬৩তম বার্ষিকী পালন করে. প্যালেস্টাইনীরা এ দিনটিকে তাদের জাতীয় বিপদ ও দখলাবস্থা সূচনার দিন হিসেবে বিবেচনা করে. ইস্রাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু পরিস্থিতি তাড়াতাড়ি স্বাভাবিক হওয়ার আশা প্রকাশ করেছেন, তবে এ কথা পুনর্সমর্থন করেছেন যে, ইস্রাইলীরা ভবিষ্যতেও নিজেদের সীমানা রক্ষা করতে বদ্ধপরিকর. প্যালেস্টাইনের নেতা এ ঘটনাকে বিপর্যয় বলে অভিহিত করেন. তিনি প্রতিশ্রুতি দেন যে, “প্যালেস্টাইনী জনগণের মুক্তি সংগ্রামে শহীদদের রক্তক্ষয় নিষ্ফল হবে না”.