0রুশ সংস্থা পাকিস্তানের রাষ্ট্রপতির মস্কো সফর উপলক্ষে ঘোষণা করেছে যে, পাকিস্তানে তারা গ্যাস খুঁজে দেখতে পারে. এছাড়া দুই দেশের রাষ্ট্রপতির আলোচনা শেষ হওয়ার পরে সাংবাদিক সম্মেলনে জানানো হয়েছে যে, বহু দেশীয় তুর্কমেনিয়া থেকে আফগানিস্থান – পাকিস্তান হয়ে গ্যাস সরবরাহের বিষয়ে পাকিস্তান ও রাশিয়ার সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা হয়েছে. এই দানবীয় গ্যাস সেতুর দৈর্ঘ্য দেড় হাজার কিলোমিটারের বেশী, আর তা দিয়ে বছরে সরবরাহ হতে পারবে প্রায় ৩০ বিলিয়ন কিউবিক মিটার গ্যাস. রাশিয়া একই সঙ্গে দুটি আঞ্চলিক পরিকাঠামো প্রকল্পতেও যোগ দেওয়ার বিষয়ে রাজী হয়েছে, যাতে বলা হয়েছে দুটি নতুন পথ তৈরী করার বিষয়ে – একটি জ্বালানী শক্তি বিষয়ে ও অন্যটি পরিবহন কাঠামো বিষয়ে – মধ্য এশিয়া থেকে আফগানিস্থান হয়ে পাকিস্তান. একটি প্রকল্প – বিদ্যুত পরিবাহী পথ – "মধ্য এশিয়া থেকে – দক্ষিণ এশিয়া" – এর অর্থ হল কিরগিজিয়া ও তাজিকিস্থান থেকে আফগানিস্তান ও পাকিস্তানে বিদ্যুত সরবরাহ. রাশিয়া তৈরী আছে দুটি মধ্য এশিয়ার দেশে দুটি জল বিদ্যুত প্রকল্প তৈরী করে দিতে, যা এই প্রকল্পের জন্য বিদ্যুতের যোগান দেবে. দ্বিতীয় প্রকল্প – এটা তাজিকিস্থান থেকে সড়ক ও রেল পথ আফগানিস্তানের উত্তর পূর্বে ওয়াখান পাস হয়ে পাকিস্তান, এই নতুন করে জন্ম নেওয়া "রেশমী পথ" স্ট্র্যাটেজিক ভাবে প্রকল্পে অংশ নেওয়া দেশ গুলির জন্য গুরুত্বপূর্ণ হবে. পাকিস্তান মধ্য এশিয়া ও রাশিয়ার বাজারে সোজা পৌঁছনোর পথ পাবে, আর তাজিকিস্থান ও রাশিয়া পাবে পাকিস্তানের বন্দর গুলিতে যাওয়ার পথ. এছাড়া আরও তিনটি দলিল স্বাক্ষরিত হয়েছে, তার মধ্যে রয়েছে: বিমান পরিবহন নিয়ে সরকারি সমঝোতা চুক্তি, দুই দেশের শক্তি পর্ষদের মধ্যে সমঝোতা চুক্তি.