সিরিয়াতে ইউরোপীয় সংঘ অস্ত্র চালান বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা নিয়েছে. একই সঙ্গে ইউরোপীয় সংঘে ১৩ জন সিরিয়ার সরকারি উচ্চপদস্থ লোকের আগমন নিষেধ করা হয়েছে, তাঁদের ইউরোপের ব্যাঙ্ক একাউন্টও আটকে দেওয়া হয়েছে. ইউরোপীয় সংঘের ঘোষণা তে বলা হয়েছে যে, বিগত কিছু কাল আগে সিরিয়াতে গণ বিক্ষোভ দমন করতে শক্তি প্রয়োগের নির্দেশ দিয়ে যাঁরা সাধারণের মৃত্যুর কারণ হয়েছেন, তাঁদের নামই এই সরকারি তালিকায় রাখা হয়েছে.

    কি রকম একটা অদ্ভূত ব্যাপার হল যে, এই তালিকায় সিরিয়ার রাষ্ট্রপতি বাশার আসাদের নাম নেই. এই নিষেধাজ্ঞা নেওয়া হয়েছে কঠোর ব্যবস্থা নিতে চাওয়া দেশ গুলির উদ্যোগে – তার মধ্যে রয়েছে ফ্রান্স. গ্রেট ব্রিটেন ও জার্মানী – আর এটা বাস্তবে এই বছরের শুরুতে ফেব্রুয়ারী মাসে লিবিয়ার বিরুদ্ধে নেওয়া ব্যবস্থারই একেবারে এক রকমের পুনরাবৃত্তি. তাই এই ক্ষেত্রে সমস্ত সমান্তরালই আগে থেকে বোঝা হয়ে গিয়েছে, পরে কি হতে চলেছে, তাও বোঝা সম্ভব.