মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে প্রতিবছরই রাশিয়ার ভূখন্ডে নিহত সোভিয়েত ইউনিয়নের এবং অন্য দেশের নিহত সেনাদের সমাধির চারপাশ ধুঁয়ে মুছে পরিপাটি করে তোলা হয়।স্মরণ করা হয় নিহতদের।মানব জাতির ইতিহাসে সেই ভয়াবহ যুদ্ধের পুনরাবৃত্তি যেন না ঘটে তারই প্রার্থনা করা হয়।

রাশিয়ার ভূখন্ডে প্রায় ৮ হাজার বিদেশি সৈন্যদের সমাধি সৌধ  রয়েছে।বিভিন্ন উত্স থেকে পাওয়া সংবাদে জানা যায়,রাশিয়ায় ২য় বিশ্ব যুদ্ধসহ অন্যান্য যুদ্ধের সময় অন্তত ৩ কোটি বিদেশি সেনা ও সামরিক উর্ধতন কর্মকর্তা নিহত হয়।রাশিয়া তাদের জন্য সর্বশেষ স্বর্গে পরিনত হয়েছে।ঐ সব সমাধি সৌধ রক্ষনাবেক্ষনের জন্য আন্তঃদেশিয় চুক্তি করা হয়ে থাকে।বলছিলেন ’যুদ্ধ সমাধি’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্পর্ক সংস্থার জেনারেল ডিরেক্টর ইভগেনি পিইলেয়াএব।তিনি বলছেন,আজ রুশ ফেডারেশনের  সাথে ১৯৪৯ সালের জেনেভা কনভেনশনের অনুধারায় রাশিয়ার ভূখন্ডে নিহত ১২টি দেশের সেনাদের সমাধি রক্ষনাবেক্ষন বিষয়ক একটি চুক্তি সাক্ষরিত হয়েছে।এই দেশসমূহের মধ্যে রয়েছে জাপান,ফিনল্যান্ড,জার্মানি ও হাঙ্গেরীসহ অন্যান্য দেশ ।চুক্তির অংশ হিসাবে রাশিয়ার ভূখন্ডে নিহত বিদেশি সেনাদের সমাধি সংরক্ষনের যাবতীয় খরচ রাশিয়াই বহন করছে।নিহত সেনাদের জন্য সমাধি সৌধ নির্মাণ যা তাদের নিজ মাতৃভূমিরই অনুরুপ মর্যাদা প্রদান করবে।তবে জার্মান সরকার তাদের নিজ দেশে ও রাশিয়ার ভূখন্ডে নিহত জার্মান সৈন্যদের জন্য নতুন সমাধি তৈরি ও রক্ষানাবেক্ষনের দায়িত্ব  নিয়েছে।ইভগেনি পিইলেয়াএব আরও বলছেন,নিহত সেনাদের সমাধি সংরক্ষনের কাজে নিয়োজিত জার্মানির যুদ্ধ ইউনিয়ন নামের সংগঠন ১৯১৮ সাল থেকে এই সমস্যা মোকাবেলা করছে।রাশিয়ার সাথে চুক্তি সাক্ষরের পর ১৯৯২ সাল থেকে জার্মান ও রুশি বিশেষজ্ঞরা রাশিয়ার ভূখন্ডে ২ লাখ ৫০ হাজার জার্মান সৈন্য নিহত হয়েছে বলে শনাক্ত করেছেন।বর্তমানে ২১টি সমাধি সৌধ অবশিষ্ট আছে।এদের মধ্যে সর্বাধিক রয়েছে আধুনিক কালিনিনগ্রাদ উপশহরে।

এছাড়া উল্লেখযোগ্য সংখ্যক জার্মান সৈন্যদের স্মৃতি সৌধ রয়েছে পেস্কোভ,নভোগ্রাদ,ক্রাসনাদারস এলাকায় ও রেজেবের কাছাকাছি শহরে।আজ পর্যন্ত রেজেবে সোভিয়েত ও জার্মান সৈন্যদের স্মৃতি সৌধ সংরক্ষন করা হচ্ছে।১৯৪২-১৯৪৩ সাল পর্যন্ত এখানেই রেজেব যুদ্ধ চলেছিল।বলছিলেন ইভগেনি।তিনি বলছেন,রেজেবের সমাধি সৌধের বেশীর ভাগ জায়গা জুড়ে জার্মান সৈন্যদের সমাধিত করা হয়েছে যারা রেজেবই নিহত হয়েছেন।এর পাশেই রয়েছে নিহত সোভিয়েত সেনাদের সমাধি।এই কাজ সম্পাদনের সময় অনেক সমস্যায় পরতে হয়েছিল।কিন্তু সিদ্ধান্ত এমনটিই নেওয়া হয়েছিল যে,এক পাশে থাকবে জার্মান সৈন্যদের সমাধি এবং এর পাশেই থাকবে সোভিয়েত সৈন্যদের সমাধি।

 ইভগেনির ভাষায়,বর্তমানে রুশ ফেডারেশনের ভূখন্ডে বিদেশি সেনাদের ‘স্মৃতি সৌধ’ রক্ষানাবেক্ষনের জন্য আন্তর্জাতিক সম্পর্ক নামের ঐ সংস্থাকেই দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।ইতিমধ্যে সামরিক সেনাদের ১১০০টি সমাধি সৌধের অর্ধেক পুরোপুরি সংরক্ষনের কাজ শেষ হয়েছে।সমাধি সৌধের মেরামত ও অন্যান্য কাজ বহাল রাখা হবে।এই কাজ সমাপ্তির জন্য সরকারের তহবিল থেকে নির্দিষ্ট অর্থ বরাদ্ধ করা হয়েছে।