উসামা বিন লাদেনের ধ্বংস আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সংগ্রামে এক সন্ধিক্ষণ স্বরূপ হয়ে উঠেছে. এ সম্বন্ধে বলা হয়েছে রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের বিশেষ বিবৃতিতে. তাতে জোর দিয়ে বলা হয়েছে সন্ত্রাসবাদের পরবর্তী বিরোধিতার জন্য সতর্কতা পালন ও প্রচেষ্টা সক্রিয় করার প্রয়োজনীয়তার কথা. নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যরা মনে করেন যে, সারা পৃথিবীতে সন্ত্রাসবাদের সংগঠক ও পৃষ্ঠপোষকদের জবাবদিহি করানো উচিত. পাকিস্তানে মার্কিনী বিশেষ সৈনিকদের দ্বারা বিন লাদেনের ধ্বংসের পর ফেডারেল তদন্ত ব্যুরোর সবচেয়ে বেশি খোঁজ চলছে এমন সন্ত্রাসবাদীদের তালিকায় তার স্থান পেয়েছে মিশরের আইমান আজ-জাওয়াহিরি. সে “আল-কাইদার” সন্ত্রাসবাদী জালের নতুন নেতা হয়ে উঠতে পারে. তাকে ধরার উদ্দেশ্যে তথ্য দেওয়ার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কর্তৃপক্ষ আড়াই কোটি ডলার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে. বিশ্লেষকরা মনে করেন যে, বিন লাদেনের ধ্বংসের পরে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদের অবস্থা দুর্বল হয়েছে, কিন্তু তবুও তা অতি বিপজ্জনক.