জাপানে “ফুকুসিমা” পারমাণবিক বিদ্যুত্ কেন্দ্রে দুর্ঘটনার পরে রাশিয়ার “রসআতোম” সংস্থা নিজের বিদেশী প্রকল্পগুলি বাস্তবায়নের মেয়াদ পরিবর্তনের সম্ভাবনা বাদ দিচ্ছে না. এ সম্বন্ধে “ইন্টারফাক্স” সংবাদ সংস্থাকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে জানিয়েছেন এই রাষ্ট্রীয় কর্পোরেশনের সহকারী ডিরেক্টর জেনারেল কিরিল কোমারোভ. তাঁর কথায়, এ বিপর্যয়ের ফলাফল সম্বন্ধে চিন্তা করার এবং নিরাপত্তার নতুন মান সৃষ্টির জন্য বিশ্ব জনসমাজের সময় প্রয়োজন. কোমারোভের কথায়, একই সঙ্গে "রসআতোম" সংস্থার প্রধান সব ফরমাশদাতা দেশগুলি আবার এ কথা বলেছে যে, তারা আগের মতোই পারমাণবিক বিদ্যুত্শক্তি বিকাশের কর্মসূচি ক্রমানুবর্তন করতে চায়. তিনি সঠিক করে বলেন যে, এদের মধ্যে আছে – “তুরস্ক, ইউক্রেন, চেকিয়া, বুলগেরিয়া, চীন, ভারত, ভিয়েতনাম”. দেশের ভিতরে ১০টি নতুন বিদ্যুত্ ব্লক তৈরি করা ছাড়া “রসআতোম” বিদেশে পাঁচটি বিদ্যুত্শক্তির ব্লক তৈরি করছে এবং আরও ২২টি আন্তর্জাতিক প্রকল্প নিয়ে আলাপ-আলোচনা চালাচ্ছে. নতুন নতুন সব শক্তির ব্লক নির্মাণের জন্য রাষ্ট্রীয় কর্পোরেশন ২০৩০ সাল পর্যন্ত ৩০ হাজার কোটি ডলার খরচ করতে চায়.