মস্কো শহরের দক্ষিণ পূর্বে মারিনো অঞ্চলে একটি ইকো অফিস তৈরী হবে. এই বাড়িটিকে তাপ ও বিদ্যুত সরবরাহ হবে নিজের থেকেই. ভবিষ্যতে এই অফিসকে স্থপতিরা বানাতে চাইছেন একেবারে শূণ্য পর্যায়ে, অর্থাত্ বাইরের কোন রকমের রিসোর্স এখানে ব্যবহার করা হবে না.

    এই ইকো অফিস তৈরী করতে যাচ্ছেন সেন্ট পিটার্সবার্গের "টেট্রা ইলেকট্রিক" নামে কোম্পানী. তৈরীর কাজ শুরু হবে এই বছরের হেমন্তে, আর ২০১৩ সালের মধ্যে এই প্রকল্পের কাজ শেষ হবে. এই বাড়ী তৈরীর দাম পড়বে প্রায় ১ বিলিয়ন রুবল – মানে তিরিশ মিলিয়ন ডলারেরও বেশী.

    প্রতি বছরেই ইকো স্থাপত্য আরও বেশী করে জনপ্রিয় হচ্ছে. প্রাকৃতিক সম্পদের কমে আসা মানুষকে আরও বাধ্য করছে নতুন প্রযুক্তি ও স্থাপত্য আবিষ্কারে, এই কথা উল্লেখ করে স্থপতি সের্গেই স্কুরাতভ "রেডিও রাশিয়াকে" দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে বলেছেন

    ""ইকো" এই ধারণাটি আসলে কি? এটা এমন একটা বাড়ী, যা পরিবেশের সঙ্গে মিলেমিশে থাকতে পারে. এমন বাড়ী যেখানে বিশেষ ধরনের প্রযুক্তি ও বাড়ী তৈরীর দ্রব্য উপযুক্ত ভাবে সেই সমস্ত সম্ভাবনাকে ব্যবহার করতে পারে, যা দরকার. এই ধরনের বাড়ী তৈরীর অর্থ হল, পরবর্তী কালে এই বাড়ী ব্যবহার ও তা ভেঙে ফেলা হলে খরচ হবে খুবই কম. এই ধরনের বাড়ী তৈরী হওয়ার কারণ দ্রুত খনিজ তেল ও গ্যাসের ভাণ্ডার কমে আসা. এই সমস্যা আগে হোক বা পরেই হোক মানব সমাজের সামনে দাঁড়াবেই. তাই আগে থেকেই এই বিষয়ে পরীক্ষা করে দেখা শুরু করতে হবে".

    আপাততঃ সবচেয়ে সফল ইকো বাড়ী তৈরীর প্রকল্প বলে মনে করা হয়েছে ডেনমার্কের 'রকউল' কোম্পানীর অফিস. এই অফিসে বিশেষ ধরনের কাঁচের ব্যবহারের ফলে জ্বালানী শক্তি ব্যয় কমানো সম্ভব হয়েছে. বাড়ীর একের তৃতীয়াংশ কাঁচ, বিশেষ ধরনের তথ্য সংগ্রহ করার যন্ত্র দিয়ে বাইরের তাপমাত্রা ও হাওয়ার জোর দেখা হয় ও কম্পিউটার স্থির করে কোন জানলা বন্ধ ও কোন জানলা খোলা রাখা দরকার. এই ব্যবস্থার গুণে বাড়ীর ভিতরের তাপমাত্রা ঠিক রাখার জন্য কোন শীত তাপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্রই ব্যবহার করতে হয় না. এখানে জল গরম করার জন্য সূর্যের আলো ব্যবহার করা হয়. তাছাড়া এই অফিসে তরল ফিল্টার করার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা রয়েছে.

    কিছু পশ্চিমের স্থপতি মনে করেছেন যে, রাশিয়ার জন্য, যেখানে আবহাওয়া চরম ও জটিল, সেখানে এই ধরনের ব্যবস্থা ব্যবহার করা সম্ভব নয়. রুশ স্থপতিরা এই ধরনের সিদ্ধান্তের সঙ্গে একমত নন. তাঁরা মনে করেন যে, শুধু তৈরী করা শুরু করা দরকার. প্রতিটি নতুন প্রকল্পের সাথে এই ধরনের স্থাপত্য আরও "রুশ" হয়ে উঠবে, এই কথা মনে করে সের্গেই স্কুরাতভ বলেছেন:

    "যা খুশী তৈরী করা সম্ভব. যে কোন রকমের প্রযুক্তিই তৈরী করা ও তা লাগানো যায়, যে কোন বাড়ীকেই সর্বাধুনিক ও খুবই গুণমান সম্পন্ন করা সম্ভব. এই খরচ করা অর্থ তার দাম তুলতে পারবে কি না সেটাই দেখার বিষয় হতে পারে? কাছেই তৈরী করা সহজতম প্রযুক্তির বাড়ী খরচের দিক থেকে বেশী উপযুক্ত. তাই হতাশ হয়ে লাভ নেই যাই প্রথমবার করা হয়, তাই যেমন দরকার তেমন হয় না. তাই বর্তমানে প্রচলিত সমস্ত ধারা থেকে যা আলাদা হতে চাইছে, তাকেই অভিনন্দন জানানো উচিত্".

    ইকো স্থাপত্য মস্কো উপকণ্ঠে নির্মীয়মাণ স্কোলকোভো উদ্ভাবনী কেন্দ্র নির্মাণেও ব্যবহার করা হচ্ছে, এই প্রকল্পের দায়িত্বে রয়েছেন আবু দাবি শহরে তৈরী উদ্ভাবনী শহরের একজন স্থপতি স্টিভেন হাইগের. তিনি বেশ কিছু বছর হল কাজ করছেন পুনঃ সৃজন যোগ্য শক্তির উত্স নিয়ে কাজ করছেন. বিশেষজ্ঞদের সন্দেহ নেই যে, হাইগের পরিচালনা করলে স্কোলকোভো কেন্দ্র শুধু ইকো প্রযুক্তি ব্যবহারের শেষ কথা ব্যবহার করেই করা হবে না, বরং সর্বাধুনিক স্থাপত্যের লক্ষ্য অনুযায়ী তৈরী করা হবে.