রাশিয়া পরম্পরা মেনে ও চিরস্থায়ী ভাবে সামরিক শক্তি প্রয়োগের ক্ষেত্রে রাষ্ট্রসংঘের সিদ্ধান্ত মানার জন্য বক্তব্য পেশ করে চলেছে. শুক্রবারে এই বিষয়ে রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিব বান কী মুনের সঙ্গে মস্কো শহরে সাক্ষাতের সময়ে ঘোষণা করেছেন.

    মেদভেদেভ রাষ্ট্রসংঘকে "এই সংঘের মূল নীতি কঠোর ভাবে পালন করে" তার আইন সঙ্গত ভিত্তি শক্ত করার বিষয়ে রাশিয়ার সমস্ত রকমের সহায়তার কথা জানিয়েছেন.

    তাছাড়া, দুই পক্ষই ইয়েমেনে, লিবিয়ায়, আইভরি কোস্ট ইত্যাদি জায়গার পরিস্থিতি নিয়ে মত বিনিময় করেছেন. মেদভেদেভ ও বান কী মুন কোরিয়া উপদ্বীপ অঞ্চলের পারমানবিক সমস্যা নিয়ে ছয় পক্ষের মধ্যস্থতা পর্ষদের আলোচনা আবার করে শুরু করার বিষয়ে কথা বলেছেন.

    মস্কোতে এই বৈঠকের সময়ে বান কী মুন ও মেদভেদেভ নিকট প্রাচ্য নিয়ে চার পক্ষের মধ্যস্থতা পর্ষদের অধিবেশন রাশিয়ার রাজধানীতে করার কথা বলেছেন, যেখানে ইজরায়েল – প্যালেস্তানীয় সমস্যা নিয়ে আলোচনা হতে পারবে. রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ও রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিব বিশ্বাস করেন যে, নিকট প্রাচ্যের সমস্যা সমাধানের জন্য এই চার পক্ষের আলোচনা এই এলাকাতে দ্রুত শান্তি প্রক্রিয়া আনার জন্য সাহায্য করবে.

    রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ ও রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিব বান কী মুন জাপানের বিপর্যয় গ্রস্ত পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্র ফুকুসিমা – ১ এর পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেছেন ও দুই পক্ষই ঘোষণা করেছেন যে, পারমানবিক কেন্দ্র গুলির নিরাপত্তা সম্বন্ধে আরও কড়া নিয়ম ও নীতি নেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে. এই ধরনের নিয়ম ও নীতি আন্তর্জাতিক পারমানবিক শক্তি নিয়ন্ত্রণ সংস্থার অংশগ্রহণে করা উচিত্ বলে মনে করেছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ও রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিব.

    মেদভেদেভ ও বান কী মুন এই মতে একমত হয়েছেন যে, এই ধরনের বিপর্যয়ের জন্যও নতুন আরও উন্নত ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া দরকার ও প্রতিক্রিয়ার জন্যও সকলের জন্য প্রযোজ্য নীতি থাকা দরকার.

    রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রী সের্গেই লাভরভ ও রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভের সঙ্গে বৈঠকের সময়ে বান কী মুন রুশ প্রজাতন্ত্রের রাষ্ট্রসংঘে বিশ্বের নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখার কাজের উচ্চ মূল্যায়ণ করেছেন.