রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন মনে করেন যে, রাশিয়া সঙ্কট পরবর্তী কালে দ্রুত উন্নতি করেছে. জাতীয় অর্থনীতি বিশ্ব অর্থনৈতিক সঙ্কটের কুফলকে অতিক্রম করতে পেরেছে, এই কথা তিনি বুধবারে দেশের লোকসভার অধিবেশনে বক্তৃতা দিতে গিয়ে বলেছেন. এর ভিত্তিতে দেশের সরকার অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নতির জন্য নতুন পরিকল্পনা তৈরী করতে চলেছে.

    প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেছেন যে, প্রশাসন কোন অবস্থাতেই দেশের নাগরিকদের কাছে দেওয়া প্রতিশ্রুতি পালনের ক্ষেত্রে পিছিয়ে যাবে না. গত দুই বছরে রাশিয়াতে বিনা মূল্যে আড়াই লক্ষের বেশী ফ্ল্যাট দেওয়া হয়েছে দেশের সামরিক বাহিনীর কর্মী ও মহান পিতৃভূমি রক্ষার যুদ্ধের ভেটেরানদের. চাকরি করার পরে লোকের পেনশন বৃদ্ধি করা হয়েছে শতকরা ৪৫ ভাগ. ৩৮টি প্রসুতি ভবন ও উচ্চ প্রযুক্তি সহ হাসপাতাল তৈরী করা হয়েছে, দেশে জন্ম হার বৃদ্ধির জন্য পরিকল্পনা চালু রয়েছে, সামাজিক ভাতা গুলিও নতুন করে বৃদ্ধি করা হয়েছে. সঙ্কট পূর্ব ২০০৭ সালের তুলনায় শিক্ষা খাতে ব্যয় বৃদ্ধি করা হয়েছে দেড় গুণ ও বিজ্ঞান বিষয়ে দুই গুণেরও বেশী.

    রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী বলেছেন যে, রাশিয়া সঙ্কটের সময়ে দেশের দুর্বল হওয়ার সম্ভাবনা পার করতে পেরেছে. ২০২০ সালের মধ্যে রাশিয়া বিশ্বের পাঁচটি বৃহত্তম অর্থনীতির একটি হতে চলেছে. আগামী দশ বছরে রাশিয়ার অর্থনীতির উত্পাদন ক্ষমতা কম পক্ষে দ্বিগুণ বৃদ্ধি করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে, আর দেশের মুখ্য অর্থনৈতিক বিষয় গুলিতে  - তিন থেকে চার গুণ.

    প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন যে, রাশিয়ার প্রশাসন আসন্ন সময়ে রাশিয়ার অর্থনীতিতে সরাসরি বিদেশী বিনিয়োগের পরিমান বছরে ৭০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার অবধি উন্নতি করতে চেয়েছে.

    বিদেশী বিনিয়োগকে দেশে টেনে আনার জন্য ও দেশে বড় প্রকল্প গুলিতে একসাথে বিনিয়োগ করার জন্য বিশেষ তহবিল গঠন করা হবে, যা দেশের থেকে জ্বালানী রপ্তানী করার অর্থ থেকে তৈরী করা হবে.

    রাশিয়ার প্রশাসনের প্রধান বিশেষ মনোযোগ দিয়েছেন পূর্ব সাইবেরিয়া থেকে প্রশান্ত মহাসাগর অবধি তেলের পাইপ লাইন নির্মাণের বিষয়ে.

    তিনি উল্লেখ করেছেন যে, ২০১০ সালে প্রথম দফায় এই পাইপ লাইন চালু করার ফলে রাশিয়া এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দেশগুলিকে খনিজ তেল রপ্তানী করতে সক্ষম হয়েছে প্রায় শতকরা ৪৫ ভাগ বেশী. ২০১৪ সালের মধ্যে দ্বিতীয় দফায় এই পাইপ লাইন নির্মাণ সম্পূর্ণ হওয়ার কথা.