ইউরো-সঙ্ঘের দেশগুলি লিবিয়ায় স্থলবাহিনী পাঠানোর পরিকল্পনা সর্বসম্মত করেছে মানবতাবাদী সাহায্যের জিনিসপত্র পাহারা দেওয়ার জন্য, যদি এ বিষয়ে অনুরোধ করে রাষ্ট্রসঙ্ঘ. এ ক্ষেত্রে পাহারার সামরিক কর্মীরা কোনো সামরিক কর্তব্য পালন করবে না. আগে পশ্চিমী কোয়ালিশনের দেশগুলির কর্তৃপক্ষ লিবিয়ায় স্থলবাহিনী পাঠানোর সম্ভাবনা অস্বীকার করেছিলেন. এখন ন্যাটো দেশগুলির যুদ্ধবিমান মুয়ম্মর গাদ্দাফি সরকারের স্থানগুলির উপর আঘাত হানছে. তবে, আকাশ থেকে সমর্থন সত্ত্বেও লিবিয়ার বিরোধীপক্ষ সাফল্য অর্জন করতে পারছে না. রাজনীতিজ্ঞ ও সমরসেবীরা স্বীকার করছেন যে, লিবিয়ায় এমন পরিস্থিতি গড়ে উঠেছে যখন সঙ্ঘর্ষে কোনো পক্ষই জয়লাভ করতে পারছে না.