রাশিয়া কাতিন ট্র্যাজেডির পূর্ণ মূল্যায়ন করে উত্তর দিয়েছে. এ সম্বন্ধে বলেছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভ স্মোলেনস্কে পোল্যান্ডের রাষ্ট্রপতি ব্রোনিস্লাভ কমোরোভস্কির সাথে সাক্ষাতে. মেদভেদেভের কথায়, “এ অপরাধের জন্য দায়িত্ব আরোপিত হচ্ছে সে সময়ের সোভিয়েত ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দের প্রতি, আর অন্যান্য ভার্সন উথ্থাপনের চেষ্টা  কোনো ঐতিহাসিক দলিল বা তথ্যের ভিত্তিতে প্রতিষ্ঠিত নয়”. ১৯৪০ সালের বসন্তে কাতিন নামে জায়গায় এন.কে.ভি.ডি-র কর্মীরা এক হাজার পোলিশ অফিসারকে গুলি করে হত্যা করেছিল. এ ট্র্যাজেডিক শিকারদের স্মৃতিসৌধের উদ্বোধনে অংশগ্রহণের জন্য ২০১০ সালের ১০ই এপ্রিল রাষ্ট্রপতি লেখ কোচিনস্কির নেতৃত্বে পোল্যান্ডের প্রতিনিধিদল বিমানে আসছিলেন. স্মোলেনস্কে নামার সময় পোল্যান্ডের “এক নম্বর বিমানের” দুর্ঘটনা ঘটে. বিমানে থাকা ৯৬ জনই মারা যায়. মেদভেদেভ বলেন যে, রাশিয়া ও পোল্যান্ড এ দুর্ঘটনায় নিহতদের জন্য স্মৃতিসৌধের প্রকল্প প্রণয়ন করছে. কমোরোভস্কি জানান যে, তিনি রুশ-পোলিশ সংলাপ ও সহমত কেন্দ্র গঠন সংক্রান্ত আইন স্বাক্ষর করেছেন.