বিশ্বে ভারী মটরগাড়ি রেস প্রতিযোগিতার শীর্ষস্থান অধিকারকারী রাশিয়ার ‘কামাজ’ দল এবার ‘আবুধাবী ডেজার্ট চ্যালেন্জ’ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হওয়ার দাবী করেছে.আনুষ্ঠানিকভাবে সংযুক্ত আরব আমিরাতে এই প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে.

মরুভূমিতে এই প্রতিযোগিতায় বিশ্বের শক্তিশালী দল অংশ নিয়েছে.রাশিয়ার পক্ষ থেকে অংশ নিয়েছে ‘সিনায়া আরমাদা’ বা নীল রংয়ের বহর যা দলগতভাবে “কামাজ মাষ্টার” নামে পরিচিত.মুলত ঐতিহ্যগতভাবে কামাজ গাড়ির নীল রংয়ের কারণেই এমন নামকরন করা হয়েছে.

রাশিয়ার প্রতিনিধিত্ব করবেন ৩ জন তরুন যাদের ইতিমধ্যে এই ধরনের প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার অভিজ্ঞতা রয়েছে.পূর্বে তারা ‘রেশম সড়ক’ ও ‘ডাকার’ প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিল.এবারের এই প্রতিযোগিতায় প্রধান বিপদজনক দিক হচ্ছে অনিয়মিত বালু.এ বিষয়ে বলছেন রাশিয়ার “কামাজ মাষ্টার” দলের প্রেস সচিব এরিক হাইরুলিন.তিনি বলছিলেন ‘এই প্রতিযোগিতা শুরুর পূর্বে কথা বলেছিলাম ইলদার বেলইয়ায়েভের সাথে যিনি আরব দেশে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতায় সবচেয়ে বেশী সংখ্যকবার অংশ নিয়েছেন.তিনি মনে করছেন, রুব-এল-হালীর মরুভূমির বালু যা বিশ্বের অন্যতম জটিল পথ.এই পথে চালককে অবশ্যই সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে.অনেকটা চোখ খুলেই গাড়ি চালাতে হবে’.

২০০৮ সালের পর পূনরায় আবুধাবীতে ‘ডেজার্ট চ্যালেন্জ‘ অনুষ্ঠিত হচ্ছে.প্রতিযোগিতার কার্যক্রম যা অসাধারণ বিশেষ স্থান নামে শিরোনাম পেয়েছে. শনিবার,২ এপ্রিল রেহার্সাল পর্ব শুরু হবে.বলছিলেন,এরিক হাইরুলিন.তিনি বলছেন ‘পরবর্তি দিন ৩ এপ্রিল প্রতিযোগিতা যা আবুধাবী থেকে কাসার-আল-সারাব পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে.এই এলাকাই রুব-এল-হালীর মরূভূমি অবস্থিত.প্রতিযোগিতার সবধরনের আনুষ্ঠানিকতা এখানেই চলবে,শুরুও হবে এখান থেকে.প্রতিবারই নতুন পথে প্রতিযোগিতা চলবে’.

রাশিয়ার নেতৃত্বে থাকছেন ভ্লাদিমীর চাগিন.চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে অনুশীলন চলাকালে ভ্লাদিমীর হাতে আঘাত  পেলে চিকিত্সকরা তাকে বিশ্রাম নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন; কিন্তু তার তারপরও তিনি আবুধাবীতে এসেছেন.রাশিয়ার নতুন প্রতিযোগীদের জন্য তার পরামর্শ খুবই সহায়ক ভূমিকা পালন করবে.তাছাড়া,তাদের রয়েছে বিজয়ী হওয়ার যথেষ্ট সম্ভাবনা. ‘ডেজার্ট চ্যালেন্জ‘ আসরে শুধুমাত্র “কামাজ মাষ্টারের” রয়েছে ১০ বার বিজয়ের গৌরবজ্জল রেকর্ড.  

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহনকারীরা মোট চারটি পর্বে অংশ নিবেন,তা হচ্ছে-মটরসাইকেল,হালকা মটরগাড়ি,ভারী মটরগাড়ি ও বর্গাকার আকারের মটরগাড়ি.আগামী ৭ এপ্রিল প্রতিযোগিতা শেষ হবে.