ভারত ইরানে সেই সব পণ্যদ্রব্য ও যন্ত্রসজ্জার রপ্তানিতে বাধানিষেধ প্রবর্তন করেছে, যা ঐ দেশে পারমাণবিক কর্মসূচির বিকাশে সহায়তা করতে পারে. সরকারের উত্স থেকে জানানো হয়েছে যে, তত্সংক্রান্ত পরিবর্তন আনা হয়েছে ২০০৯-২০১৪ সালে ভারতের বৈদেশিক বাণিজ্যিক নীতির পরিকল্পনায়. এ দলিলের সংশোধনে বলা হয়েছে, “সে সমস্ত পণ্য, বস্তু, যন্ত্রসজ্জা এবং প্রকৌশলের রপ্তানি নিষেধ করা হচ্ছে, যা ইরানে ইউরেনিয়ামের পরিশোধনে অথবা পারমাণবিক অস্ত্র লাভের ব্যবস্থার বিকাশে সহায়তা করতে পারে”. পর্যবেক্ষকদের মতে, ইস্লামিক প্রজাতন্ত্র ইরানের সাথে ঐতিহ্যগত মৈত্রী সম্পর্কে আবদ্ধ ভারত এ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে সম্পর্ক সুদৃঢ় হওয়া উপলক্ষ্যে. বিশ্লেষকরা মনে করেন যে, এ যুক্তি দ্বারা পরিচালিত হয়েই নয়া-দিল্লি গত বছরের ডিসেম্বরের শেষে ইরানের বিরুদ্ধে আর্থিক বাধানিষেধ কঠোর করার জন্য ওয়াশিংটনের আকাঙ্ক্ষা পুরণ করেছে, তেল ও গ্যাস আমদানি সংক্রান্ত কাজে এশীয় ক্লিয়ারিং সঙ্ঘের অ্যাকাউন্ট ব্যবহার নিষেধের কথা ঘোষণা করে.