রাসিয়া লিবিয়ায় পরিস্থিতির বিকাশে উদ্বিগ্ন এবং এ দেশে সঙ্ঘর্ষে লিপ্ত সব পক্ষকে সংলাপের আহ্বান জানাচ্ছে. এ সম্বন্ধে বুধবার মস্কোয় এক সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরোভ. তিনি জোর দিয়ে বলেন যে, আন্তর্জাতিক জনসমাজের ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত্, যাতে লিবিয়ায় শান্তিপূর্ণ অধিবাসীরা হতাহত না হয়. একই সঙ্গে রাশিয়া ন্যাটো কোয়ালিশনের দ্বারা লিবিয়ার বিরোধীপক্ষকে অস্ত্র সরবরাহের বিরুদ্ধে মত প্রকাশ করে এবং এ খবরে উদ্বিগ্ন যে, বিরোধী পক্ষের মাঝে থাকতে পারে আল-কাইদার প্রতিনিধিরাও. রাশিয়ার মন্ত্রী বলেন, “আমার স্থিরবিশ্বাস যে, অগ্নি সংবরণ এবং অবিলম্বে আলাপ-আলোচনা শুরু করা হল প্রদান কর্তব্য”. রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ ১৭ই মার্চ জামাহিরির আকাশ সীমা বন্ধ করার সিদ্দান্ত গ্রহম করে. রাশিয়া ভোটদান থেকে বিরত থাকে.লিবিয়ায় সামরিক অভিযান শুরু হয় ১৯শে মার্চ. বিমান আঘাতে এবং উড্ডয়ন-নিষিদ্ধ এলাকা সুনিশ্চিতকরণে অংশগ্রহণ করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, গ্রেট-বৃটেন, ফ্রান্স, এবং অন্যান্য রাষ্ট্র. কোয়ালিশনের অভিয়ানের অধিনায়কত্ব এখন চলে আসছে ন্যাটো জোটের হাতে.