শাংহাই সহযোগিতা সংস্থার দেশগুলি ২০১১-২০১৬ সালের জন্য নার্কোটিক বিরোধী স্ট্র্যাটেজি বিষয়ক প্রকল্প অনুমোদন করেছে. কাজাখস্তানের রাজধানী আস্তানায় বৈঠকে তাঁরা তাছাড়া নার্কোটিক কারবারের বিরুদ্ধে সংগ্রামে প্রায়োগিক ক্রিয়াকলাপের প্রশ্ন আলোচনা করেন. রাশিয়ার ফেডারেল নার্কোটিক নিয়ন্ত্রণ বিভাগের ডেপুটি ডিরেক্টর ওলেগ সাফোনোভ উল্লেখ করেন যে, শাংহাই সহযোগিতা সংস্থার জন্য অন্যতম প্রধান কর্তব্য হল আফগানিস্তান থেকে নার্কোটিকের চোরাচালানের বিরোধিতা করা. রাষ্ট্রসঙ্ঘের তথ্য অনুযায়ী, ২০০১ সাল থেকে, যখন এ দেশে আন্তর্জাতিক কোয়ালিশনের অভিযান শুরু হয়. নার্কোটিকের উত্পাদন ৪৪ গুণ বেড়েছে, আর নার্কোটিক কারবারীদের আবর্তন পৌঁছেছে ৬৫০০ কোটি ডলারে. সাফোনোভ উল্লেখ করেন যে, এই অর্থের দরুণ চরমপন্থা ও সন্ত্রাসবাদ প্রত্যক্ষভাবে শাংহাই সহযোগিতা সংস্থার সীমানার কাছে এগিয়ে আসছে. এ সংস্থায় অন্তর্ভুক্ত আছে রাশিয়া, কাজাখস্তান, কির্গিজিয়া, তাজিকিস্তান, উজবেকিস্তান এবং চীন.