লিবিয়ার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে যে, সরকারী সৈন্যবাহিনী দেশের পশ্চিমে মিস্রাতা শহর নিয়ন্ত্রণাধীন করেছে, জানিয়েছে "প্রেস টি.ভি" টেলিচ্যানেল. বিরোধী পক্ষের তথ্য অনুযায়ী, এ আক্রমণের সময় নিহত হয়েছে ৪০ জনের উপর, ২০০ জন আহত হয়েছে. বিদ্রোহীদের কথায়, হতাহত সকলে – “শান্তিপূর্ণ মিছিলকারী”. তাছাড়া এ তথ্যও পাওয়া যাচ্ছে যে, গাদ্দাফি বিপুল শক্তি সমাবেশ করছে আজ-জিন্তান শহরের দিকে, যা এখন বিদ্রোহীদের হাতে রয়েছে. বিদ্রোহীদের কথায়, এ শহরের প্রবেশ পথের কাছে লিবিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর ইতিমধ্যেই ৪০টি ট্যাঙ্ক রয়েছে. গত সন্ধ্যায় আন্তর্জাতিক কোয়ালিশনের বিমান বাহিনী লিবিয়ার কয়েকটি শহরের উপর আঘাত হেনেছে. ত্রিপোলিতে প্রচার মাধ্যম নতুন নতুন হতাহত ও ধ্বংসের খবর জানিয়েছে. লিবিয়ায় সামরিক হস্তক্ষেপ অনুমোদন করেছে রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ, আর সিদ্ধান্ত এর প্রাক্কালে গৃহীত হয়েছিল প্যারিসে শীর্ষ-সাক্ষাতে, যাতে অংশগ্রহণ করেছিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোসঙ্ঘের দেশগুলি, এবং তাছাড়া রাষ্ট্রসঙ্ঘ ও আরব দেশগুলির প্রতিনিধিরা. রাশিয়া লিবিয়ায় সামরিক হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে মত প্রকাশ করেছিল.