রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ লিবিয়া সম্পর্কে নতুন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে. বিশেষ করে, তা অনুযায়ী, জামাহিরির ভূভাগে উড্ডয়ন-নিষিদ্ধ এলাকা গঠন এবং লিবিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর বিরুদ্ধে সম্ভাব্য সামরিক ক্রিয়াকলাপ অনুমিত, এবং তাছাড়া “শান্তিপূর্ণ অধিবাসীদের রক্ষার প্রয়োজনীয় সমস্ত ব্যবস্থা” অনুমিত. তাছাড়া, এ দলিলে লিবিয়ার একসারি নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে বাধানিষেধ কঠোর করা এবং লিবিয়ার জাতীয় তৈল কোম্পানির শেয়ার ও এ দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কের বন্ড সাময়িকভাবে অচল করে রাখার কথা বলা হয়েছে. ফ্রান্স, গ্রেট-বৃটেন, লেবানন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দ্বারা প্রস্তুত করা এ সিদ্ধান্ত সমর্থন করেছে নিরাপত্তা পরিষদের ১৫টি দেশের মধ্যে ১০টি দেশ. রাশিয়া, চীন, জার্মানি, ভারত ও ব্রেজিল ভোটদান থেকে বিরত থেকেছে. রাশিয়া উদ্বিগ্ন যে, লিবিয়ার আকাশে উড্ডয়ন-নিষিদ্ধ এলাকার প্রবর্তন ব্যাপক পরিসরের সামরিক হস্তক্ষেপের দিকে নিয়ে যাবে, যার ফলে শান্তিপূর্ণ অধিবাসীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে. এ সম্বন্ধে বলেছেন রাষ্ট্রসঙ্ঘে রাশিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি ভিতালি চুরকিন. মস্কোর স্থিরবিশ্বাস যে, লিবিয়ায় নিরাপত্তার দিকে সবচেয়ে সংক্ষিপ্ত পথ – অগ্নি সংবরণ, সামরিক হস্তক্ষেপ নয়, বলেন চুরকিন.