লিবিয়া পরিস্থিতি বিষয়ে যদি জাতিসংঘ অথবা আফ্রিকান ইউনিয়ন থেকে তদন্ত কমিটি পাঠানো হলে ত্রিপলী আনুষ্ঠানিকভাবে এর বিরোধিতা করবে না.লিবিয়ার নেতা মুহাম্মর গাদ্দাফি এক বিবৃতিতে এ কথা বলেন.তার ভাষায়,উপরন্তু রাষ্ট্র কঠোর হস্তে সরকারবিরোধি শক্তি দমন ও মিথ্য অপপ্রচার বন্ধ করছে.সময়ের সাথে লিবিয়া পরিস্থিতি নিয়ে বিশ্ব সম্প্রদায় উত্কন্ঠা প্রকাশ করছে.ফেব্রুয়ারির শেষ দিকে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ ত্রিপোলীকে অস্ত্র বিক্রয় অথবা সরবরাহে এবং গাদ্দাফির বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে.বর্তমানে ফ্রান্স ও যুক্তরাজ্য লিবিয়ার সাথে আকাশপথে যোগাযোগ স্থগিত করার চেষ্টা করছে.