১২৪ জন রুশিসহ মোট ১১২৬ জন বিদেশি নাগরিকদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিতে ‘সেভেইয়াতোই স্তেফান’ নামের জাহাজটি লিবিয়ার রাস-লানুফ বন্দরে পৌঁছেছে.যদিও জাহাজটি চের্নগোরী থেকে ২৩ ফেব্রুয়ারি রওনা হয়েছিল, কিন্তু প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে গন্তব্যে পৌঁছাতে বিলম্ব করে.

এদিকে লিবিয়ায় অবস্থানরত রাশিয়ার নাগরিকদের দেশে ফিরিয়ে আনতে আজ জরুরি সহায়তা মন্ত্রনালয় ইল-৭৬ নামের আরও একটি বিমান পাঠাচ্ছে.এই লোকজন রাশিয়ার রেল বিভাগের সাথে চুক্তি অনুযায়ী লিবিয়ার জামাহাইরিতে এবং ত্রিপলী,সির্ত ও রাস-লানুফ শহরের তেল নিষ্কাশন কোম্পানীতে কর্মরত ছিল.

লিবিয়া সরকার বিক্ষোভ আন্দোলনে আক্রান্ত তাদের দেশ থেকে রাশিয়ার নাগরিকদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়ার কাজে সহায়তা করার আশ্বাষ দিয়েছে এবং একই সাথে ত্রিপলীতে অবস্থিত রাশিয়ার দুতাবাসের কূটনীতিকদের নিরাপত্তা প্রদানের ব্যবস্থা করবে.

লিবিয়ার জাতীয় পররাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক কমিটির সেক্রেটারী জামাহিরি মুসা কুসা এক বিবৃতিতে এই ঘোষণা দেন.উল্লেখ্য,শনিবার রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগেই ল্যাভরোভের সাথে জামাহিরির টেলিফোন আলপচারিতা অনুষ্ঠিত হয়.

রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের নির্দেশে রুশি নাগরিকদের দেশে ফিরিয়ে আনার উদ্দোগ নেওয়া হয়.এর আগে রাশিয়ার জরুরি সহায়তা মন্ত্রনালয় তাদের ৬টি ফ্লাইটে লিবিয়া থেকে অন্তত ৫০০ জনকে ফিরিয়ে আনে এবং যাদের মধ্যে ৩৩০ জন রুশি নাগরিকও ছিল.