রাইমন্ড ডেভিসের বিচার আজ লাহোরে শুরু হচ্ছে, যে জেলে ডেভিস আছে, তার চারপাশের সমস্ত রাস্তা ও আদালতে কড়া পাহারার বন্দোবস্ত করা হয়েছে. জেলের বাড়িটিকে ঘিরে রয়েছে পুলিশ ও সামরিক বাহিনীর বিশেষ বিভাগের কর্মীরা. এই এলাকায় সম্ভাব্য সন্ত্রাসবাদী হানা এড়াতে সমস্ত রকমের গাড়ী চলাচল ও লোকের চলাফেরা বন্ধ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে. এছাড়া লাহোরের সমস্ত নিরাপত্তা সংস্থার সদস্যরা শহরের সর্বত্র সক্রিয় ভাবে টহল দিচ্ছেন.

এই বছরের ২৭শে জানুয়ারী মার্কিন নাগরিক রাইমন্ড ডেভিস দুইজন পাকিস্তানী লোককে নিজের বন্দুক থেকে গুলি করেছিল, তার কথামতো, এই দুই জন ওকে লুঠ করতে যাচ্ছিল ও অস্ত্র দিয়ে ভয় দেখাতে চেয়েছিল. তদন্তে প্রকাশ যে লাহোরের মার্কিন কনস্যুল অফিসে প্রযুক্তি সহায়ক পদে গোপন হয়ে থাকা এই গুপ্তচর ঠাণ্ডা মাথায় ওই দুই জনকে খুন করেছে, আর সে আগে থেকেই তাদের চিনতো. আমেরিকার পক্ষ থেকে ডেভিসের কূটনৈতিক মর্যাদার কথা তুলে তাকে জেল থেকে অবিলম্বে ছেড়ে দিতে বলা হচ্ছে, কিন্তু সরকারি ভাবে ইসলামাবাদ এই বিষয়ে অন্য মনোভাব প্রকাশ করেছে.

একই সঙ্গে পাকিস্তানে সক্রিয় তেহরিক এ তালিবান পাকিস্তান দলের তালিবেরা সরকারকে ভয় দেখিয়েছে যে, যদি রাইমন্ড ডেভিসকে ছেড়ে দেওয়া হয়, তবে তারা দেশের সামরিক ও সামাজিক স্থলে নতুন করে সন্ত্রাসবাদী হানা দেবে.