ভারতে মুম্বাইয়ের হাইকোর্ট পাকিস্তানী সন্ত্রাসবাদী আজমল আমীর কাসাবের মৃত্যুদণ্ড অনুমোদন করেছে, যাকে মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছিল ২০০৮ সালে এ শহর আক্রমণের জন্য, যার ফলে ১৬০ জনের উপর মারা গিয়েছিল. এ সম্বন্ধে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন উকিল এজাজ় নাকউই, যিনি রায় শোনানোর সময় কোর্ট-রুমে উপস্থিত ছিলেন. কাসাব, দশজন সন্ত্রাসবাদীর একমাত্র, যাকে জীবন্ত অবস্থায় ধরা সম্ভব হয়েছে, আদালতের প্রশ্নের উত্তর দেয় ভিডিও-যোগাযোগের মাধ্যমেঃ নিরাপত্তার কারণে তাকে বিচারকক্ষে নিয়ে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছিল. সন্ত্রাসবাদী আজকের রায়ের বিরুদ্ধে আপীল করতে পারে ভারতের সুপ্রীম কোর্টে. যদি ঐ আদালতও তার আপীল সমর্থন না করে তাহলে কাসাব দেশের রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমাদানের অনুরোধ জানাতে পারে. হাইকোর্ট দুজন ভারতীয়কে মাফ করেছে, যারা কাসাবের সাথে এক কাঠগড়ায় ছিল. তদন্ত ফাহিম আনসারি ও সাবাহুদ্দীন আহমেদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছিল পাকিস্তানী সন্ত্রাসবাদী দল “লশ্কর-এ তাইবার” জন্য এ সব জায়গা সম্বন্ধে তথ্য সংগ্রহ করার. তদন্তের তথ্য অনুযায়ী, এই “লশ্কর-এ তাইবা” দলই ছিল এ আক্রমণের পিছনে.