রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ থাইল্যান্ড ও কম্বোডিয়াকে গোলা গুলি বর্ষণ বন্ধ রেখে শান্তিপূর্ণ ভাবে সফল আলোচনায় বসতে আহ্বান করেছে. এই বিষয়ে ১৪ই ফেব্রুয়ারী নিউইয়র্ক শহরে আয়োজিত পরিষদের জরুরী বৈঠকের পরে নেওয়া দলিলে বলা হয়েছে. এই বৈঠকে থাইল্যান্ড ও কম্বোডিয়ার পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রধান কাসিত পিরম ও নর নামহোং  নিরাপত্তা পরিষদের সামনে পরস্পরের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন যুদ্ধের উসকানি দেওয়ার জন্য ও নিজেদের তরফ থেকে এই প্রশ্নের ভবিষ্যত সম্বন্ধে বক্তব্য রেখেছেন. বৈঠক শেষে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে নেওয়া প্রস্তাবের দলিলে বলা হয়েছে যে, দুই পক্ষের সম্মিলিত পর্ষদকে ফেব্রুয়ারী মাসের শেষে সীমান্ত সংক্রান্ত প্রশ্ন নিয়ে আলোচনায় বসতে আহ্বান করা হয়েছে. থাইল্যান্ড কম্বোডিয়ার সীমান্তে আজ দুই বছর ধরে উত্তেজনা রয়েছে, ২০০৮ সালের জুলাই মাসে যখন ইউনেস্কো সংস্থা প্রেহক বিহার মন্দির এলাকাকে কম্বোডিয়ার সংস্কৃতির নিদর্শন হিসাবে বিশ্ব সংস্কৃতি ঐতিহ্যের তালিকায় যুক্ত করে, তখন থেকে এই বিরোধ শুরু হয়েছে.থাইল্যান্ড এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে একমত নয়, কারণ এই মন্দির এলাকায় কোন সীমান্ত নির্ণয় করা হয় নি.