ইজিপ্টের রাষ্ট্রপতি হোসনি মুবারক কায়রো শহরের জনগনের মধ্যে মারামারি নিয়ে অনুসন্ধান করার জন্য এক স্বাধীন পরিষদ গঠন করার নির্দেশ দিয়েছেন. এই পরিষদের মূল কাজ হবে – সবচেয়ে নিরপেক্ষ ভাবে মিছিল কারীদের উপরে শক্তি প্রয়োগ সম্বন্ধে অনুসন্ধান করা. এক সপ্তাহ আগে হোসনি মুবারকের সমর্থকেরা চেষ্টা করেছিল দেশের কেন্দ্রীয় চত্বর তহরির থেকে বিদ্রোহ কারীদের হঠিয়ে দিতে, কারণ তারা রাষ্ট্রপতির পদত্যাগ অবিলম্বে করার জন্য দাবী করেছিল. এই মারামারি চরমে ওঠে, যার ফলে ১১ জন প্রাণ হারায়. মানবাধিকার রক্ষা পর্যবেক্ষণ সংস্থার তথ্য অনুযায়ী ইজিপ্টে গণ উত্তেজনার শিকার হয়ে প্রাণ দিয়েছেন ২৯৭ জন লোক.