রাশিয়ার শিক্ষার্থীদের দল ২৫তম শীতকালিন বিশ্ব ইউনিভারসিয়াডে চ্যাম্পিয়ান হয়েছে.গত ২৭ জানুয়ারি থেকে ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এই ক্রিড়া প্রতিযোগিতা তুরষ্কের এরজুরুমে অনুষ্ঠিত হয়.মোট পদক সংখ্যা ও স্বর্ণ পদক তালিকা, এই উভয় দিক থেকেই রাশিয়া শ্রেষ্ঠোত্ব অর্জন করে.রাশিয়ার নিকটতম প্রতিপক্ষ দেশ হচ্ছে দক্ষিন কোরিয়া ও ইউক্রেন.রাশিয়া মোট ৩৯টি পদক লাভ করে যার মধ্যে রয়েছে ১৪টি স্বর্ন,১৪টি রৌপ্য ও ১১টি ব্রোঞ্জ.

রাশিয়া পুরো ইউনিভারসিয়াডেই নির্ভরতার সাথে শ্রেষ্ঠোত্ব ধরে রাখে এবং কখনই পয়েন্ট সংখ্যার উপরের দিক থেকে সরে যায় নি.শুরুতে শ্যুটার ও বরফ স্কেটিংয়ের প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়.এমনকি পুরুষদের ৩০ কিলোমিটার দীর্ঘ দূরত্বে পয়েন্ট সংগ্রহের দিক থেকে অধিকাংশই ছিল রুশি ক্রিড়াবিদ.প্রতিযোগিতার শেষ দিনে রাশিয়ার হকিদল স্বর্ণ পদক লাভ করে.ফাইনালে তারা ১-০ গোলে বেলারুশকে পরাজিত করে.

রাশিয়ার ছাত্র ক্রিড়া ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট অলেগ মাতিছিন ইউনিভারসিয়াডে রাশিয়ার শিক্ষার্থীদের পরিবেশনাকে ‘অসাধারন’ বলে উল্লেখ করেছেন.তিনি বলেছেন,অনেক গুরুত্বপূর্ণ যে,শুধুমাত্র মাউন্ট স্কিং ও স্নোবোর্দ ছাড়া প্রায় প্রতিটি বিভাগেই আমাদের দল পদক পেয়েছে.বিজয়ে সবচেয়ে বড় অবদান রেখেছে আমাদের শ্যুটার ও বরফ স্কেটিং এর ক্রিড়াবিদরা.এছাড়া আমারা স্বর্ণ পদক লাভ করেছি শারীরিক নৃত্যে,ফ্রিস্টাইলে এবং হকি খেলায়.আমি মনে করি যে,এটি ভাল সংকেত.বলব‘ভানকুবারের অন্ধকারের ছায়া’ অতিক্রম হচ্ছে.যে ছেলে-মেয়েরা আমাদের এই দলে ছিল তারা জাতীয় দলের সদস্য এবং সোচীতে অলিম্পিক গেমসে অংশ নেওয়ার যোগ্যতা রাখে.

প্রতি ২ বছর অন্তর শিক্ষার্থীদের এই বিশ্ব ক্রিড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয় এবং ২৮ বছর কম বয়সের ক্রিড়াবিদদের জন্য অন্যতম ক্রিড়া প্রতিযোগিতা হিসাবে পরিচিত.প্রতিযোগিতার বিভিন্ন বিভাগ ও অংশগ্রহনকারীদের সংখ্যার দিক থেকে ইউনিভারসিয়াডকে অলিম্পিকের সাথে তুলনা করা যেতে পারে.তুরষ্কে চলতি বছরের প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহনকারী ক্রিড়াবিদদের সংখ্যার দিক থেকে তা রেকর্ড গড়েছে.এরজুরুমে ৫২টি দেশের প্রায় ৩০০০ ক্রিড়াবিদ অংশ নেয়.ক্রিড়াবিদরা ১১টি বিভাগে মোট ৬৬টি খেলায় অংশ নেয়.

সাধারনত ইউনিভারসিয়াডকে তরুন ক্রিড়াবিদদের নিজস্ব ধারা প্রকাশের ক্ষেত্র হিসাবে ধরা হয়.উপরন্তু,এই বছর অনেক দেশই শক্তিশালী দল পাঠিয়েছে.কার্যত,এটি হচ্ছে জাতীয় দল যারা আগামী ৩ বছর পর সোচীর অলিম্পিক গেমসে নিজের দেশের সম্মান রক্ষা করবে.