মস্কো শহরে আজ ইরানের আন্তর্জাতিক পারমানবিক শক্তি নিয়ন্ত্রণ সংস্থায় স্থায়ী প্রতিনিধি আলি আসগর সলতানিয়ে ঘোষণা করেছেন যে, ইরান এই কাজের সম্পূর্ণ অধিকার রাখে.

তিনি বলেছেন - আমাদের দেশ শান্তিপূর্ণ পারমানবিক শক্তির বিকাশের কাজে উল্লেখ যোগ্য অগ্রগতি করত পেরেছে, আমরা এই কাজ কখনোই থামাবো না, তবে তেহরান আন্তর্জাতিক পারমানবিক শক্তি নিয়ন্ত্রণ সংস্থার সঙ্গে আরও সহযোগিতা করার জন্য তৈরী.

আমরা রাশিয়ার প্রতি কৃতজ্ঞ আমাদের সঙ্গে একসাথে বুশের পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্র তৈরী করার জন্য, যেখানে শীঘ্রই কাজ শুরু হবে কম্পিউটার ভাইরাস আক্রমণ স্বত্ত্বেও. তাঁর মতে এর ফলে কাজের কোন ক্ষতি হবে না – দ্বিতীয় চেরনোবিল সেখানে হবে না, সেখানে পরিস্থিতি রাশিয়া ও ইরানের ইঞ্জিনিয়ারেরা নিয়ন্ত্রণ করছেন. তিনি একই সঙ্গে নাথাঞ্জে ইউরেনিয়াম পরিশোধন কেন্দ্রের কম্পিউটারে ভাইরাস আক্রমণের তথ্যকে মিথ্যা বলে বাতিল করে দিয়েছেন.

বুশের পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্রের চালু হওয়া আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই হবে বলে ইরানের পররাষ্ট্র দপ্তরের রাজনীতি বিষয়ক উপ মন্ত্রী মোহামাদ মেহদি আহুনজাদে জানিয়েছেন. তথাকথিত কাঠামো গত বাস্তব ভাবে বুশের কেন্দ্রের প্রথম রিয়্যাক্টর চালু করা হয়েছে গত বছরের আগষ্ট মাসে.