“পার্তনিয়োর” নামে নৌকোর নাবিকদের দেহের ময়না তদন্তের ফলাফল দেখিয়েছে যে, তাদের মৃত্যু ঘটেছে ঠান্ডায় জমে গিয়ে. বর্তমানে খুঁজে পাওয়া গেছে পাঁচজনের দেহ. কাম্বোডিয়ার পতাকাতলে যাত্রা করা এ নৌকোয় ছিল ১৪ জন রাশিয়ার নাবিক. তিনজনের দেহ সনাক্ত করা হয়েছেঃ রাঁধুনে, বোটসম্যান ও নাবিক (পিতা ও পুত্র). ৭ই জানুয়ারী ভানিন বন্দরের ডেস্প্যাচার তাতার প্রণালীর জল-এলাকায় “পার্তনিয়োর” নামে মাছ-ধরা নৌকো থেকে বিপদ সঙ্কেত পেয়েছিল. নৌকোটি মনে হয়, ডুবে গিয়েছিল, তবে নৌকোডুবির চিহ্ন প্রকটিত হয় নি. অনুসন্ধান কাজ চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে.