এই বছরে রাশিয়া প্রায় পঞ্চাশটি মহাকাশ যানের উড়ানের আয়োজন করেছে. এপ্রিল মাসে বিশ্বে মহাকাশ বিজ্ঞান যুগের শুরু হওয়ার পঞ্চাশ বছরের জয়ন্তী পালিত হবে. ১৯৬১ সালের এপ্রিল মাসে বিশ্বে প্রথম মহাকাশ ভ্রমণ সম্পন্ন করেছিলেন ইউরি গাগারীন.

    এই বছরে আমেরিকার জি পি এস প্রযুক্তির সঙ্গে প্রতিযোগিতার উপযুক্ত গ্লোনাসস উপগ্রহের মাধ্যমে দিক নির্ণয় ব্যবস্থা নিয়ে নতুন জাতীয় প্রযোজনা গৃহীত হবে. সুদূর পূর্বে শুরু হতে চলেছে সম্পূর্ণ অবয়বে নূতন রুশ মহাকাশ উড়ান ক্ষেত্র "ভস্তোচনি" তৈরী করার কাজ – এই কথা ইউরি গাগারীনের উড়ানের ৫০ বছরের জয়ন্তী বত্সর অনুষ্ঠানের আয়োজন সংক্রান্ত অধিবেশনে রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন উল্লেখ করে বলেছেন:

    "এই বছরে মহাকাশ গবেষণা বিষয়ে এক গুচ্ছ প্রকল্প নেওয়া হয়েছে. যেমন, নূতন রুশ মহাকাশ উড়ান কেন্দ্র সুদূর পূর্বের "ভস্তোচনি" কেন্দ্রের সম্পূর্ণ অবয়বে নির্মাণের কাজ ও প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো সমেত প্রথম উড়ান মঞ্চের প্রতিষ্ঠা.

    এছাড়া প্রায় পঞ্চাশটি মহাকাশ যানকে পৃথিবীর কাছের কক্ষপথে পাঠানো হচ্ছে, তারই সঙ্গে এই বছরে নেওয়া হতে চলেছে নূতন জাতীয় প্রযোজনা – "গ্লোনাসস" ব্যবস্থা, যা ২০২০ সাল অবধি পরিকল্পিত.

    আমাদের উচিত এই দৃষ্টিকোণ থেকে দেখা যে, রাশিয়ার জন্য মহাকাশের সঙ্গে জড়িত যে কোন বিষয়ই শুধু ঐতিহ্য অনুযায়ী গুরুত্বপূর্ণ নয়, বরং জাতীয় গৌরবের বিষয় বস্তু. আমাদের দেশের লোকেরাই – যেমন শিয়ালকোভস্কি, করলিয়ভ, গাগারীন – বহু যুগের মানব সমাজের মহাকাশ জয়ের স্বপ্নকে বাস্তবে পরিনত করেছেন, তারা বিশ্বের জন্য পথ খুলে দিয়েছেন, একটুও না বাড়িয়ে বলা যায়, বৈজ্ঞানিক প্রযুক্তি ও সামাজিক- অর্থনৈতিক উন্নতির এক বিশাল সম্ভাবনা". বিশেষ করে উল্লেখ করেছেন ভ্লাদিমির পুতিন.

১৬ই মার্চ পাইলট যুক্ত সইউজ মহাকাশ যানের পরবর্তী আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের অভিযাত্রীদের নিয়ে রওয়ানা হবে. এই মহাকাশ যানের খোলে লেখা থাকবে "গাগারীন". মহাকাশচারীদের পোষাকে ও সারভাইভ্যাল স্যুটে প্রথম ঐতিহাসিক মহাকাশ ভ্রমণে ব্যবহৃত "ভস্তক" মহাকাশ যানে ইউরি গাগারীনের ছবি সমেত বিশেষ প্রতীক থাকবে. ফরাসী গায়ানা থেকে, যেখানে বর্তমানে রাশিয়ার পরিবাহক রকেট উড়ানের জন্য ক্ষেত্র তৈরী হচ্ছে, সেখানের এক ১২ বছর বয়সের ছেলে এই প্রতীকের ধারণার স্রষ্টা.

নতুন বছরে রাশিয়া বহু দিন পরে দূর মহাকাশ গবেষণার ক্ষেত্রে আবার অনুসন্ধান শুরু করতে চলেছে, অক্টোবর মাসে পরিকল্পনা রয়েছে আন্তর্গ্রহ স্বয়ংক্রিয় মহাকাশ যান "ফোবোস" উড়ানের, যা মঙ্গল গ্রহের উপগ্রহ ফোবোস থেকে বিশ্বে মাটির নমুনা নিয়ে আসবে.