পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের সরকার এই এলাকায় শান্তি আনার প্রয়াসে তালিবদের আলোচনা করতে ডেকেছে. পাকিস্তানের সেনা বাহিনীর নেতৃত্ব ও সরকারের নেতৃত্ব প্রাক্তন আফগান রাষ্ট্রপতি বারহুদ্দিন রব্বানীর নেতৃত্বে আসা এক সামাজিক পরিষদের সঙ্গে আলোচনা করতে গিয়ে এই বিষয়ে সহমতে এসেছে. রব্বানী বর্তমানে আফগানিস্তানে শান্তির প্রশ্নে গঠিত সর্ব্বোচ্চ পরিষদের নেতা, যাঁর কাজের মধ্যে বিরোধী সশস্ত্র জঙ্গীদের সঙ্গে যোগাযোগ করাও রয়েছে.এই সাক্ষাত্কারে দুই পক্ষই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে, আফগানিস্তানে শান্তির জন্য তাঁরা এক কার্যকরী ব্যবস্থা নেবেন, এই ব্যবস্থার একটি অঙ্গ হল তালিব বিরোধী দের আলোচনাতে সামিল করা.