২০১০ সাল এক বিশাল সাংস্কৃতিক কারণে উল্লেখ যোগ্য তারিখকে কেন্দ্র করে শেষ হয়েছে – আন্তন চেখভের ১৫০তম জন্ম বার্ষিকী. রুশ সাহিত্যের এই বিশ্ব বিখ্যাত ধ্রুপদী লেখকের জন্ম দিন আন্তর্জাতিক মাপেই পালন করা হয়েছে, আর এটা অবাক হওয়ার মতো কিছু নয়. "চেখভ – জীবনের এক অতুলনীয় চিত্রকার, যাঁর শিল্প শুধু রুশ লোকেরই আপন নয়, সমস্ত মানুষেরই, সবার". এই কথা নিজের সহকর্মী ও সমসাময়িক লেখকের সম্বন্ধে বলেছেন অন্য এক রুশ সাহিত্যের মহাপুরুষ লেভ তলস্তয়.

    রাশিয়ার সংস্কৃতি মন্ত্রী আলেকজান্ডার আভদেয়েভের মতে "রাশিয়াতে চেখভের প্রতি ভালবাসা, তাও, সম্পূর্ণ আলাদা রকমের".

    "চেখভ একজন লেখক, যিনি মানুষকে সমর্থন করতে পারেন, তাঁকে বুঝতে দিতে পারেন যে, জীবন এমনিতেই গুরুত্বপূর্ণ ও মূল্যবান, কোন রকমের বড় ধরনের বিজয় বা অনুসন্ধান ব্যতিরেকেই, চেখভ বিংশ শতকের রুশ চিন্তাধারা তৈরীর কাজে এক বিরাট অবদান রেখেছেন, আর আমি বলতে চাই যে, বিশ্বের প্রতি দৃষ্টিকোণ নির্ণয় ও মানুষের অধিকার সম্বন্ধে বোধোদয়ের ক্ষেত্রে যা আজ রাশিয়াতে প্রাধান্য পেয়েছে, তা অবশ্যই চেখভের সৃষ্ট".

    বিশ্বের সমস্ত সাংস্কৃতিক মন্ডলের প্রতিনিধিরা রাশিয়াতে বিগত বছরের প্রায় সব সময়েই এসেছিলেন বোধহয় বলা যেতে পারে চেখভের প্রতি তাঁদের গভীর সম্মান জানাতে ও নিজেদের চেখভের শিল্প সম্পর্কে যে ধারণা তা প্রকাশ করতে. জানুয়ারী মাসেই মস্কোতে এক আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজন করা হয়েছিল, লেখকের জন্মদিন উপলক্ষে (২৯শে জানুয়ারী). নাম ছিল "চেখভকে নিয়ে কথা", আর তখন যাঁরা বক্তৃতা দিয়েছিলেন, তাঁদের বক্তব্যে আগ্রহোদ্দীপক চিন্তা ও নতুন ধারণা কিছু কম ছিল না, যার প্রতিফলন দেখতে পাওয়া গিয়েছিল নবম আন্তর্জাতিক চেখভ স্মরণে নাট্য উত্সবের নাটক গুলিতে. জয়ন্তী উপলক্ষে এই উত্সব করা হয়েছিল এক বিশাল প্রসারে – ১৪টি দেশ থেকে এসেছিল ২৬টি প্রযোজনা: প্রথমে মস্কোতে "শীতের অধিবেশন" ও গ্রীষ্মের "ম্যারাথন" আর তারপরে ইউরোপ, উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকাতে বিশ্ব পরিক্রমা.

    উত্সব প্রমাণ করে দিয়েছে যে, আন্তন চেখভের বিশাল শিল্প উত্তরাধিকার থেকে –প্রায় ৯০০ নাটক ও রচনা – আগের মতই আকর্ষক রয়ে গিয়েছে নাট্য শিল্পের ঐশ্বর্য ও উত্কর্ষের প্রমাণ – "মঞ্জরী আমের মঞ্জরী", "ইভান খুড়ো", "চাইকা", "তিন বোন". কিন্তু নব নাট্য আন্দোলনের অভিঘাতে মঞ্চস্থ হয়েছে, তাঁর নাটক নয় এমন সমস্ত গল্প, রচনা, ডায়েরী ও এমনকি লেখকের খাতা থেকে নেওয়া ল্যাবরেটরী থেকে পাওয়া ছোট উক্তিও. এই গুলিকেও নাটকের অবয়বে ব্যাখ্যা করতে চাওয়া হয়েছে, সমস্ত রকমের সম্ভাব্য মাধ্যমকে ব্যবহার করে, এমন কি চেখভের রচনা নিয়ে প্রায় অকল্পনীয় নাট্য বিস্তার চেখভের নাট্য চরিত্ররা শুধু ঐতিহ্য অনুযায়ী দর্শকের সঙ্গেই কথা বলে নি, বরং অপেরার কন্ঠস্বরে, ব্যালের ভঙ্গিমায় বা সার্কাসের কুশীলবের মতো অভিনয় করেছে.

    চেখভের বিশ্বের সম্বন্ধে নিজেদের ধারণাকে প্রকাশ করেছেন বিখ্যাত সেই সমস্ত পরিচালকেরা যেমন, জার্মানীর ফ্র্যাঙ্ক কাস্তের, স্পেনের হুয়ান মাইওরকা, রুশ পরিচালক আন্দ্রেই কনচালোভস্কি, ব্রিটেনের ডেক্লান ডন্নেল্লান. প্রসঙ্গতঃ ডন্নেল্লান, তাঁর অন্য সমস্ত সহকর্মীদের মতই লেখক চেখভের সম্বন্ধে ধারণা একজন চিকিত্সকের অনুকল্পে. ডেক্লান ডন্নেল্লান বলেছেন যে, "চেখভ যে, পেশায় চিকিত্সক ছিলেন, তা তাঁর কাজের মধ্যেই অনুভূত হয়েছে ও অনেক কিছুই ব্যাখ্যায় সক্ষম".

    চেখভের গল্প পড়ে তাঁর মনে হয়েছে যে, "চেখভ যেন একজন চিকিত্সা করতে উদ্যত শল্য চিকিত্সক, যাঁর হাতের ধারালো অস্ত্র ও চিকিত্সকের সপ্রেম দৃষ্টি দিয়ে তিনি তাঁর সৃষ্ট চরিত্র গুলিকে রোগীর মতই দেখছেন বিনা আবেগে".

    মস্কোর ভাখতানগভ থিয়েটারে অভিনীত "ইভান খুড়ো" নাটকের প্রযোজনা দেখে মনে হয়েছে যে, এখানেও ব্রিটেনের পরিচালকের মত দৃষ্টিকোণ থেকে চেখভ কে দেখা হয়েছে. রাশিয়াতে তা চেখভ জয়ন্তী অধিবেশনের সেরা প্রযোজনা বলে বিবেচিত হয়েছে, এই নাটকের পরিচালক – লিথুয়ানিয়া থেকে আসা রিমাস তুমিনাস, তিনি চেখভ সম্বন্ধে আলোচনা করেতে গিয়ে স্বীকার করে বলেছেন:

    "আমি অন্যদের মতই, বোধহয়, এমন একজন মানুষ, যে প্রায়ই জীবনের থেকে অসুস্থ হয়ে পড়ি. কখনও কেন কিছুকেই বিশ্বাস করতে পারি না, লক্ষ্য হারিয়ে ফেলি, তখন ভাবি, কি করে সুস্থ হওয়া যায় আর এমন কি – এই রকমের অবস্থার সঙ্গে লড়াই করার কি কোন দরকার আছে কি না ভাবতে বসি. কিন্তু তখন এমন একজন চিকিত্সক আছেন – আন্তন চেখভ, যদি তাঁর কাছে যাওয়া যায়, তবে তিনি মন দিয়ে শোনেন, কোন ওষুধের তালিকার বদলে একটা নাটক বাড়িয়ে দেন, আমি তখন তা প্রযোজনা করতে লাগি আর ভাল হয়ে উঠি".

    বিখ্যাত রুশ পরিচালক লেভ দোদিন মনে করেন যে, চেখভ "শক্তিশালী ওষুধের" মতই শক্তিশালী লেখক. "তিন বোন" নাটকের প্রথম প্রযোজনার দিনটিকে সেন্ট পিটার্সবার্গের ছোট নাট্যশালাতে তিনি চেখভ জয়ন্তীর শেষ অধ্যায়ের জন্য তুলে রেখেছিলেন. এই নাটক টি দেখানো হয়েছে সমস্ত ডিসেম্বর মাস ধরেই.

    "চেখভ আমাদের সুন্দর হতাশা ভরা জীবনের সম্বন্ধে এত জোর দিয়ে বলেন, আমাদের আশার সঙ্গে জীবনের দেওয়া অমিল নিয়ে এত যে ট্র্যাজেডি অথচ তার মধ্যেই আত্মবিশ্বাস কে ধরে রাখার চেষ্টা, মানুষের মর্যাদাকে আঁকড়ে থাকার প্রাণপণ প্রচেষ্টা – এই সবই শেক্সপিয়রের মত তাঁর নাটককেও যুগ উপযোগী করে রেখেছে – তা বারে বারেই অভিনীত হয়ে চলেছে" – বলেছেন দোদিন.

    "চেখভের সঙ্গে কথাবার্তা থামতেই পারে না" – বিশ্বাস করেন বিখ্যাত জার্মান পরিচালক পিটার শ্টাইন, "চেখভের নাটক নিয়মিত প্রযোজনা করা দরকার – প্রতি পাঁচ – ছয় বছর পরে পরেই, যাতে মানুষের মূল্যবোধ কে আবার করে সুস্থ করা যায়".