যেমন চলে আসছে, তেমনই ভাবে নতুন বছরের শুরুতে রাশিয়া প্রজাতন্ত্রের রাষ্ট্রপতি দেশের নাগরিকদের উদ্দেশ্য করে বক্তৃতা দিয়েছেন. দিমিত্রি মেদভেদেভ শুধু গত বছরের মূল্যায়নই করেন নি, তিনি এই শতকের বিগত প্রথম দশকের মূল্যায়ণ করেছেন.

    "খুব শীঘ্রই ক্রেমলিনের মিনারের ঘড়ির ঘন্টার শব্দের সাথে ২০১০ সাল বিদায় নেবে আর তারই সঙ্গে শেষ হয়ে যাবে বর্তমান শতকের প্রথম দশক. পুরনো দশককে বিদায় জানাতে গিয়ে আমরা মনে করছি আনন্দ ও দুঃখের মুহূর্ত গুলিকে আর আশা করছি যে, আগামী হবে আমাদের প্রত্যেকের জন্যে ও সারা দেশের জন্যই ভাল ও সফলতার বছর. আমরা একসাথে শক্তিশালী, খোলা মেলা, মৈত্রী ভাব পূর্ণ আধুনিক রাশিয়া তৈরী করবো".

    গত বছর ছিল নতুন রাশিয়ার ইতিহাসে এক সবচেয়ে জটিল বছর. প্রথমতঃ তা মনে রয়ে গেল প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের কারণে – অনতিপূর্ব দাবদাহ ও দাবানলে, যা দেশকে কম্পিত করেছে. এই পরিস্থিতির প্রভাব পড়েছে দেশের অর্থনীতিতে, যা সঙ্কট পরবর্তীকালের প্রক্রিয়াকে শ্লথ করেছে. কিন্তু তা স্বত্ত্বেও অর্থনৈতিক উন্নতির হার ২০১০ সালের শেষে হতে চলেছে শতকরা চার শতাংশ.

    বিগত বছরে জনসংখ্যার সমস্যা অতিক্রম করার কিছু লক্ষণ দেখতে পাওয়া গিয়েছে. তা হতে পেরেছে একসাথে অনেকগুলি ব্যবস্থা নেওয়ার ফলেই, যা দেশের নেতৃত্ব গ্রহণ করেছে. তিনি বলেছেন:

    "আমাদের খুবই সমৃদ্ধ ও প্রাচীন পরম্পরা, আর আমরা সম্পূর্ণ যুক্তিসঙ্গত কারণেই তা নিয়ে গর্ব করতে পারি. তা স্বত্ত্বেও বর্তমানের রাশিয়া – একটি নবীন রাষ্ট্র. মনে করিয়ে দিই যে, আগামী বছরে এই রাষ্ট্রের শুধু কুড়ি বছর বয়স হবে. দেশের জন্য এটা কোন বয়স নয়, কিন্তু নতুন রাশিয়াতে যাদের জন্ম হয়েছিল সেই বাচ্চারা আজ বড় হয়েছে. এখন তাদের উপরেই দায় পড়বে আগামী দশকের রাশিয়া কেমন হবে তা বলার. আর সমস্ত কিছুই যা আমরা করছি, আমরা আমাদের ছেলেমেয়েদের জন্যই করছি, যাতে তারা স্বাস্থ্যবান হতে পারে, তারা নিজেদের জীবনে যা চায়, তা যেন পায়, যাতে তারা এক নিরাপদ, বিত্তবান ও সুখী দেশে বাঁচতে পারে, যেখানে বড়দের সম্মান করা হয়, আমাদের বহু জাতি সমন্বয়ে তৈরী দেশের ঐতিহ্য বজায় থাকে, যেখানে নতুন লক্ষ্য সাধনের জন্য এগিয়ে যাওয়া হচ্ছে".

    রুশ মার্কিন নূতন স্ট্র্যাটেজিক আক্রমণাত্মক অস্ত্রসজ্জা সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষর বিগত বছরের পররাষ্ট্র নীতিতে সবচেয়ে বড় সাফল্য. ন্যাটো জোট ও ইউরোপীয় সংঘের সঙ্গে স্বাভাবিক সম্পর্ক পুনরুদ্ধার করার জন্যও অনেক বড় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে. এর ফলে ইউরোপীয় মহাদেশে পারস্পরিক বিশ্বাসের আবহাওয়া বৃদ্ধি পেয়েছে. আর এর ফলে আমরা ভবিষ্যতের প্রতি আশা নিয়ে তাকিয়ে থাকবো.

"নতুন বছরের উত্সবের এক অতুলনীয় পরিবেশ আছে, - বলেছেন দিমিত্রি মেদভেদেভ. – এই উত্সব এক বিশেষ উষ্ণতা ও সদ্ভাবের উত্সব. চলুন আমরা একে অপরকে শুভ নববর্ষের শুভেচ্ছা জানাই, সকলকে ভালবাসা ও আনন্দ কামনা করি! আমাদের সমস্ত স্বপ্ন সফল হোক! শুভ ২০১১ সালের নববর্ষ"!

আমাদের দিক থেকে আমরাও আমাদের সমস্ত সম্মাননীয় শ্রোতা ও পাঠকদের "রেডিও রাশিয়া"র তরফ থেকে জানাই একই রকমের শুভ কামনা আর আমরা আশা করবো যে, প্রতিটি নতুন বছরের সাথেই আপনাদের সংখ্যা বাড়বে.