খারাপ নয়. শেষ হতে চলা বছরে রাশিয়ার অর্থনৈতিক উন্নতি সম্বন্ধে যে রকম মূল্যায়ণ করেছেন রাষ্ট্রপতি     দিমিত্রি মেদভেদেভ, তাকে এক কথায় এই রকমই বলা যেতে পারে. মূল বিষয় হল যে, সঙ্কটের পরিণতি অতিক্রম করা সম্ভব হয়েছে ও ভাল সম্ভাবনার দিকে বের হওয়া গিয়েছে, ২০১০ সালের অর্থনৈতিক উন্নতির বিষয় নিয়ে আয়োজিত অধিবেশনে রাষ্ট্রপতি এই ঘোষণা করেছেন.

    ২০০৮ সালের শেষ ও ২০০৯ সালের শুরুতে খুব কম লোকই শেষ অবধি বুঝতে পারছিলেন যে, এই অবনয়ন কত দিন চলবে. কিন্তু বিশ্বের অর্থনৈতিক সঙ্কট স্বত্ত্বেও, সমগ্র অর্থনৈতিক সমস্যা এবং এই বছরের গরম কালে দেশের উপরে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের আঘাতকে সহ্য করেও রাশিয়ার অর্থনীতিতে ইতিবাচক ঘটনা ২০১০ সালে তাও অনেক বেশী ঘটেছে, উল্লেখ করেছেন দিমিত্রি মেদভেদেভ, তিনি বলেছেন:

    "সেই ঘটনা পরম্পরা, যা আমাদের অর্থনীতিতে এই বছরে বাস্তবায়িত করা সম্ভব হয়েছে, তা মোটেও খুব খারাপ নয়. তার উপরে দেখা গিয়েছে যে, সেটা যথেষ্ট শান্ত ও ভালই হয়েছে. অবশ্যই তার উপরে আমাদের আভ্যন্তরীণ সমস্যার ছাপ পড়েছে, আর খুব কঠিন গরম কালও দায়ী. অনতিপূর্ব দাবদাহ, আমাদের কৃষিজাত শষ্যের উপরে আঘাত করেছে, ফলে আমরা ফসলের একটা বিরাট অংশ হারিয়েছি – এটা একদিকে, আর অন্যদিকে নিজেদের সামগ্রিক অর্থনৈতিক সূচক গুলিকে নিজেরাই খারাপ করেছি. যদিও সব মিলিয়ে তা খুব খারাপ হয় নি: বিগত বছরে আমাদের অবনয়ন ছিল প্রায় দশ শতাংশ, এই বছরে হতে চলেছে প্রায় শতকরা চার শতাংশ উন্নতি."

    কিন্তু মূল্য বৃদ্ধির হার সম্বন্ধে ভাল কিছুই বলা সম্ভব নয়. ফসল না হওয়াতে এক সারি খাদ্য দ্রব্যের দাম বেড়েছে অনেক. এটা সাধারন লোকের পকেটের উপরে যথেষ্ট চাপ বাড়িয়েছে. রাষ্ট্রপতি এই কথা স্বীকার করে নিয়ে বলেছেন:

    "আমরা সেই সমস্ত সূচক বজায় রাখতে পারিনি, যা নিজেরাই নিজেদের উপরে চাপিয়ে ছিলাম. ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছিল প্রায় শতকরা সাড়ে আট শতাংশ দাম বাড়ার, কিন্তু আসলে দেখা গেল তা আরও কিছুটা বেড়েছে. যাই হোক আমাদের আগে থেকে ভাবা পথেই চলতে হবে, যা যথেষ্ট আগেই ঠিক করা হয়েছিল, - মূল্য বৃদ্ধিকে থামানোর জন্য আগামী বছরে ধারাবাহিক ভাবে কাজ করে যেতে হবে."

    আরও একটি প্রশ্ন, যা রাষ্ট্রপতি প্রশাসনের সামনে রেখেছেন, তা হল দেশে বিনিয়োগের আবহাওয়ার উন্নতি করা. বিদেশী বিনিয়োগকারীরা রাশিয়াতে আসছেন, কিন্তু তা তত সক্রিয় ভাবে নয়, যতটা আশা করা হয়েছিল, এই কথা উল্লেখ করে দিমিত্রি মেদভেদেভ বলেছেন:

    "দুঃখের কথা হল, আমাদের দেশের বিনিয়োগের পরিবেশ কম করে বললে বলা ঠিক হবে যে, ভাল হওয়ার আরও আশা করা যেতে পারে. আমাদের পক্ষে যে অর্থনৈতিক সঙ্কটের পরিণতি অতিক্রম করা সম্ভব হয়েছে, আমরা যে বেকারত্বের সমস্যা দূর করতে পেরেছি, আমরা যে সামাজিক সমস্ত দায় ভার নিতে পেরেছি – এই অর্থে আমাদের সরকারের বিবেক পরিস্কার থাকতে পারে. কিন্তু বিনিয়োগের পরিবেশ খুবই জটিল, তার উপরে কিছু বাস্তব ও কিছু বানানো কারণও রয়েছে. সম্ভবতঃ মনে হয়েছে যে, কিছু অসাধারণ ব্যবস্থা নিতে হবে, যাতে এই পরিস্থিতিকে পাল্টানো সম্ভব হতে পারে."

    আগামী বছরে কিছু কম শক্তি প্রয়োগ করতে হবে না যাতে রাশিয়া, কাজাখস্থান ও বেলোরাশিয়ার শুল্ক সংগঠনের কাজকর্মের রীতি নীতি আরও সঠিক করা সম্ভব হয়. এই তিন দেশের মধ্যে ঐক্য বদ্ধ অর্থনৈতিক এলাকা তৈরী করার জন্য পুরোদমে প্রস্তুতির কাজ চলছে. এই সমাকলনের ফলে এক বিরাট রাজনৈতিক জয় হবে বলে উল্লেখ করেছেন দিমিত্রি মেদভেদেভ. কিন্তু একই সময়ে তিনি স্বীকার করেছেন যে, এটা রাশিয়ার অর্থনীতির জন্য একটা খুব বড় রকমের পরীক্ষাও বটে.