ইস্রাইল আবার বলেছে যে, মানবতাবাদী সাহায্য সহ নতুন জাহাজ গাজা অঞ্চলে ঢুকতে দেবে না. আগে কর্তৃপক্ষ সতর্ক করে দিয়েছিল যে, জাহাজ আটক করা হবে এবং গাজা অঞ্চলে সাহায্য পাঠানো হবে স্থলপথে. মধ্য প্রাচ্যের “জেরুসেলাম পোস্ট” পত্রিকার খবর অনুযায়ী, “এশিয়া-১” জাহাজ এখন দাঁড়িয়ে আছে সিরিয়ার একটি বন্দরে. জাহাজে রয়েছে ১০ লক্ষ ডলারের মালপত্র, সেই সঙ্গে ইরান থেকে পাঠানো ওষুধপত্র এবং ১৬০ জনেরও বেশি সক্রিয় কর্মী, যারা বিভিন্ন এশীয় দেশের নাগরিক. এই “এশিয়া-১” জাহাজের মালিকেরা মিশরের কাছে তার এল-আরিশ বন্দরে ঢোকার অনুমতির জন্য আবেদন করতে চায়, যাতে সেখান থেকে গাজা অঞ্চলে যেতে পারে. ইস্রাইলের ভয় যে, মানবতাবাদী সাহায্যের সাথে চোরা-চালান হিসেবে সামরিক উদ্দেশ্যের মালপত্র গাজা অঞ্চলে ক্ষমতাসীন রাডিক্যাল “হামাস” আন্দোলনকে পাঠানো যেতে পারে. গত মে মাসে ইস্রাইলী বিশেষ বাহিনী আটক করেছিল গাজা অঞ্চলে যাত্রা করা তুরস্কের “মাভি মারমারা” নামে জাহাজ. এ অভিযানের সময় নিহত হয়েছিল নয়জন প্যালেস্টাইনপন্থী সক্রিয় কর্মী এবং আহত হয়েছিল কয়েক জন ইস্রাইলী.