রাশিয়ার ভেলিকি উস্তুগ নামের জায়গায় নিজের বাড়ী থেকে এসে রাজধানী মস্কোয় দেশের প্রধান ফার গাছে তুষার দাদু আজ উত্সবের আলো জ্বালাবেন তাঁর যাদু দণ্ডের ছোঁয়া দিয়ে. শীতের এই রূপকথার চরিত্রের দুটি প্রধান কাজ, এক মস্কোর ছোট্ট বাচ্চাদের সঙ্গে দেখা করা আর ফার গাছে আলো জ্বালানো. তিরিশ মিটার লম্বা একশ বছরের পুরনো সুন্দর ফার গাছ এর মধ্যেই সাজানো হয়েছে আর অপেক্ষা শুধু তুষার দাদুর. ক্রেমলিনের সামনের স্কোয়ারে মূল গাছের নীচে বাচ্চা আর বড়রা জমায়েত হবে, তাদের মনোরঞ্জন করতে সেখানে নাচগানের দলও থাকছে, তারাই লোকের সঙ্গে কথা বলে, কৌতুক করে তুষার দাদু আসা পর্যন্ত সবাইকে মাতিয়ে রাখবে. সাদা বরফ রঙের ঘোড়ায় টানা রথে নাতনি স্নেগুরোচকা সহ তুষার দাদু স্কোয়ারে আসবেন, তাঁর উপহারের ঝুলি কাঁধে, সঙ্গে থাকবে এক ছোট্ট ছেলে – নতুন বছর যার নাম.