মস্কো আমেরিকার সেনেটে স্ট্র্যাটেজিক আক্রমণাত্মক অস্ত্রসজ্জা সংক্রান্ত নূতন চুক্তি গ্রহণ করাকে অভিনন্দন জানিয়েছে. দিমিত্রি মেদভেদেভ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এই চুক্তি গ্রহণ করায় সন্তুষ্ট হয়েছেন ও আশা করেছেন যে, রাশিয়ার পার্লামেন্টের সদস্যরাও এই প্রশ্নে উপযুক্ত মনোযোগ দেবেন, বলে জানিয়েছে ক্রেমলিনের তথ্য দপ্তর.

   এক সপ্তাহ ধরে শুনানী চলার পরে বুধবার সন্ধ্যায় মার্কিন কংগ্রেসের সেনেট এই চুক্তি গ্রহণ করেছে. ৭১ জন সেনেটর পক্ষে, বিরক্ষে ২৬ জন. এর মধ্যে কয়েকদিন আগেই মনে হয়েছিল যে, এই চুক্তির ভবিষ্যত আশঙ্কাজনক. সেনেটে রিপাবলিকান দলের কম সংখ্যক প্রতিনিধি দলের নেতা মিচ ম্যাককোন্নেল্ল ও তার ডান হাত সেনেট সদস্য জন কাইল ঘোষণা করেছিলেন যে, তাঁরা এই চুক্তির বিপক্ষে. তাঁদের কথার পুনরাবৃত্তি করেছিলেন কিছু রাষ্ট্রপতি পদের অভিলাষী সেনেট সদস্য, যাঁরা সেনেটে তাঁদের সহকর্মী একই দলের প্রতিনিধিদের তুলনায় আরও বেশী পরিমানে দক্ষিণ পন্থী মতাদর্শে বিশ্বাসী. ক্রেমলিন ও, নিজেদের দিক থেকে, সাবধান করে দিয়ে বলেছিল যে, যে কোন রকমের বড় পরিবর্তন করা হলে এই চুক্তি বাতিল হবে ও নূতন করে সহমতে আসার প্রযোজন দেখা দেবে.

   বড়দিনের আগে যে ঘটনা ঘটে গেল, তাকে ঐতিহাসিক বলা যেতেই পারে. বারাক ওবামার কথা মতো, গত কুড়ি বছরের মধ্যে অস্ত্র হ্রাস সংক্রান্ত এটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ চুক্তি. রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিব বান গী মুন আশা প্রকাশ করেছেন যে, এই দলিলের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে গ্রহণ “বহু পরিশ্রমের ফলে বিগত কয়েক বছরে সৃষ্ট পারমানবিক অস্ত্র প্রসার নিরোধ ও নিরস্ত্রীকরণ সম্পর্কে কাজকর্মের গতিকে রক্ষা করতে সহায়তা করবে”.

   এই দলিল সম্পূর্ণ ভাবেই ভারসাম্য যুক্ত হয়েছে বলে মনে করেছেন রুশ পররাষ্ট্র ও প্রতিরক্ষা পরিষদের সদস্য ফিওদর লুকিয়ানভ, তিনি বলেছেন:

   “আমার মতে আমাদের সামনে এক আদর্শ পারস্পরিক ভাবে ভারসাম্য রেখে সহমতে আসার উদাহরণ দেখতে পাওয়া যাচ্ছে, যখন, সব মিলিয়ে, কেউই কোন গুরুত্বপূর্ণ কিছু খেয়াল করতে ভোলে নি, একই সময়ে প্রত্যেক পক্ষই এর থেকে এমন কিছু পেয়েছে, যা পেতে চেয়েছিল. যা রাশিয়া পেয়েছে, তা হল যেমন, প্রত্যাবর্তণ যোগ্য ক্ষমতার হিসাব, নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থাও পাল্টেছে আর স্ট্র্যাটেজিক প্রতিরক্ষা ও আক্রমণাত্মক অস্ত্রসজ্জা সংক্রান্ত বিষয়ে যোগাযোগকে এখানে উল্লেখ করা হয়েছে, - এটাকে রাশিয়ার পক্ষ থেকে সাফল্য বলা যেতেই পারে. একই সময়ে রকেট প্রতিরোধ ব্যবস্থা সম্বন্ধে প্রশ্ন গুলি, যা রাশিয়ার পক্ষ থেকে খুব চেষ্টা করা হয়েছিল এই চুক্তিতে অন্তর্ভুক্ত করতে, তা চুক্তির মধ্যে নেই, যদিও একটি কাঠামো বের করা সম্ভব হয়েছে, যা প্রত্যেক পক্ষকেই ঘোষণা করতে সাহায্য করে যে, তারা নিজেদের পছন্দ মতো সাফল্য লাভ করেছে”.

   এই চুক্তি অনুযায়ী, প্রত্যেক পক্ষই নিজেদের স্ট্র্যাটেজিক আক্রমণাত্মক অস্ত্রসজ্জা কম করবে এমন ভাবে, যাতে সাত বছর পরে যুদ্ধের জন্য তৈরী আন্তর্মহাদেশীয় ব্যালিস্টিক রকেট, ডুবোজাহাজে লাগানো ব্যালিস্টিক রকেট ও ভারী বোমারু বিমানে বসানো ব্যালিস্টিক রকেটের পরিমান ৭০০টির বেশী না হয় ও তার জন্য ১৫৫০ টির বেশী বোমা না থাকে. এই চুক্তিতে আরও বাধ্য করা হয়েছে স্ট্র্যাটেজিক রকেটের পরিমানকে বর্তমানের চেয়ে প্রায় দুভাগেরও বেশী কমিয়ে ৮০০টি করতে ও পারমানবিক অস্ত্রের বিষয়ে পারস্পরিক ভাবে পরিদর্শন ব্যবস্থা আবার চালু করতে.

   প্রথম থেকেই আশা করা হয়েছিল যে, নূতন চুক্তি সম্বন্ধে ২০০৯ সালের ডিসেম্বর মাসের আগেই সহমতে আসা যাবে, যখন এর আগের চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়েছিল. কিন্তু এটা করা সম্ভব হয় নি. নূতন চুক্তির নীচে দুই দেশের নেতারা স্বাক্ষর করেছিলেন ২০১০ সালের এপ্রিল মাসে. দুই পক্ষই সহমতে এসেছিলেন যে, এই চুক্তিকে একই সাথে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও রুশ দেশে গ্রহণ করা হবে.

   রাশিয়ার লোকসভার এই চুক্তি সংক্রান্ত পরিষদ গরমের ছুটির আগেই স্ট্র্যাটেজিক আক্রমণাত্মক অস্ত্রসজ্জা সংক্রান্ত চুক্তি নিয়ে আলোচনা করে লোকসভার সদস্যদের এই চুক্তি গ্রহণ করতে পরামর্শ দিয়েছিল. কিন্তু – মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেনেটের আগে নয়.

   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেনেটে এই চুক্তি গ্রহণের প্রাক্কালে নূতন পরিবর্তন সংযোজন করা হয়েছে যে, এই চুক্তিকে আমেরিকার রকেট প্রতিরোধ ব্যবস্থা তৈরীর পরিকল্পনার উপর প্রভাব বিস্তার করার জন্য ব্যাখ্যা হিসাবে ব্যবহার করা যাবে না.

রুশ পার্লামেন্টের সদস্যরাও, আশা করা হয়েছে যে, খুব তাড়াতাড়ি এই চুক্তি গ্রহণ করবেন. তাঁদের কিন্তু কিছু সময় লাগবে বিচার করতে যে, কি শর্তে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এই চুক্তিকে গ্রহণ করা হয়েছে, এই তথ্য জানিয়েছেন রুশ রাষ্ট্রপতির তথ্য প্রচার সচিব নাতালিয়া তিমাকোভা.