রবিবারে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের জরুরী বৈঠকে কোরিয়া উপদ্বীপ অঞ্চলের পরিস্থিতি নিয়ে রাশিয়ার প্রস্তাবিত খসড়া ঘোষণাকে গ্রহণ করা হবে বলে মস্কোতে আশা প্রকাশ করা হয়েছে. এই বিষয়ে রিয়া নোভস্তি সংস্থাকে ঘোষণা করেছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রসংঘের স্থায়ী প্রতিনিধি ভিতালি চুরকিন. মস্কোর উদ্যোগে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ এই বৈঠকে বসবে এবং সিওল ও পিয়ং ইয়ং কে সর্ব পক্ষের সহমতে আসা প্রস্তাব করা হবে, যাতে বলা হবে যে, এই কোরিয়া উপদ্বীপ অঞ্চলের পরিস্থিতি আরও খারাপ হওয়ার থেকে রক্ষা করার জন্য ভুল পদক্ষেপ নেওয়া থেকে বিরত থাকতে. সিওল ঠিক করেছে পীত সাগরে ১৮ থেকে ২১ শে ডিসেম্বর প্রশিক্ষণ মূলক গোলা বর্ষণ করবে, বাজে আবহাওয়ার জন্য আগে স্থির করা ২০ শে ডিসেম্বরের জায়গায় সময় এগিয়ে এনে, পিয়ং ইয়ং জবাবে জানিয়েছে যে, তারা দক্ষিণের এই ধরণের প্রশিক্ষণের উপরে ২৩ শে নভেম্বরের চেয়েও শক্তিশালী আঘাত হানবে, যখন উত্তর কোরিয়ার গোলা বর্ষণের ফলে দক্ষিণ কোরিয়ার ইওনপহিয়েন্দো দ্বীপে চার জন স্থানীয় অধিবাসী প্রাণ হারিয়েছিলেন. ১৯৫৩ সালে উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যে যুদ্ধ শেষ হওয়ার পর থেকে এই ঘটনাকেই সব চেয়ে বড় দ্বিপাক্ষিক সংঘর্ষের ঘটনা বলে ধরা হয়.