ভ্লাদিমির পুতিনের উদ্দেশ্য কুড়ি লক্ষেরও বেশী প্রশ্ন পৌঁছেছিল. এই বৃহস্পতিবারে প্রধানমন্ত্রী নবম বার সরাসরি সম্প্রচারের সময়ে রুশ লোকেদের সঙ্গে কথা বলেছেন. চার ঘন্টা ২৫ মিনিট সময়ে প্রধানমন্ত্রী জনগনের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ৮৮ টি প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন.

ভ্লাদিমির পুতিন মনে করেন যে, রাশিয়ার অর্থনীতি সঙ্কট পূর্ব অবস্থায় পৌঁছবে ২০১২ সালের প্রথম অর্ধের আগেই. আজকের দিনে দেখা গিয়েছে শিল্পোত্পাদনে উন্নতি, ব্যাঙ্ক ব্যবস্থাও কাজ করছে স্থিতিশীল ভাবে, দশ লক্ষেরও বেশী কাজের জায়গা তৈরী করা সম্ভব হয়েছে. এর ফলে জনগনের সত্যিকারের রোজগার বেড়েছে, সামাজিক ভাতা গুলিও বেড়েছে. রাশিয়ার লোকেদের জন্য এই বছরে বার্ধক্য ভাতা প্রায় দেড় গুণ বৃদ্ধি করা হয়েছে.

এই বারে প্রধানমন্ত্রীকে একেবারে প্রশ্নবাণে জর্জরিত করা হয়েছে মস্কো ও দেশের অন্যান্য শহরে প্রচুর বড় আকারের যুব বিক্ষোভ নিয়ে. এই নিয়ে দেশের সমাজেও প্রচুর প্রতিধ্বনি উঠেছে. পুতিন দেশের আইন রক্ষী বাহিনীকে কঠোর ভাবে আইন মেনে সামাজিক নিয়ম শৃঙ্খলা বজায় রাখতে বলেছেন:

"চরমপন্থার উত্সকে সব দিক থেকে আটকাতে হবে, যেখান থেকেই তা শুরু হোক না কেন. কাউকেই সবার সঙ্গে এক রঙে রাঙানোর দরকার নেই, কিন্তু যে কোন রকমের চরম কাজ কারবারকে কঠোর ভাবে নিবৃত্ত করতে হবে. সকলেই অনুভব করতে পেরেছেন যে, নিয়ম শৃঙ্খলা থাকার দরকার আছে ও তা রক্ষাও করা দরকার. গরিষ্ঠ সংখ্যক লোকের স্বার্থ রক্ষার জন্যেই রাষ্ট্রের প্রয়োজন হয়".

রাশিয়ার সঙ্গে ইউক্রেন ও অন্যান্য স্বাধীন রাষ্ট্র সমূহ সংস্থার সদস্য দেশ গুলির সম্পর্ক নিয়ে ভ্লাদিমির পুতিন উল্লেখ করেছেন যে, রাশিয়া, বেলোরাশিয়া ও কাজাখস্থানের শুল্ক সংঘ এবং ভবিষ্যতে সম্মিলিত অর্থনৈতিক অঞ্চল নির্মাণের সিদ্ধান্ত প্রয়োজনীয় এবং যুক্তিযুক্ত পদক্ষেপ, তিনি এই সূত্রে বলেছেন:

"এই বিষয়টি শেষ অবধি জনসাধারনের পক্ষেই যাবে, যারা নানা ধরনের জিনিস ও পরিষেবা আরও কম দামে পেতে শুরু করবেন ও আমাদের দেশ গুলির অর্থনীতিও ভাল হবে. যদি ইউক্রেন কোন না কোন ভাবে এই সমাকলন প্রক্রিয়ায় যুক্ত হয়, তবে এটা ইউক্রেনের অর্থনীতির বিশাল সংখ্যক শিল্পকে রক্ষা করার একটা শক্তিশালী অগ্রগতি হবে ও আমাদের বহু উত্পাদনের ক্ষেত্রে প্রতিযোগিতা করার মতো ক্ষমতা যুক্ত হবে. কিন্তু এটা – ইউক্রেনের জনগণের ও নেতৃত্বের জন্য সার্বভৌম নির্বাচন হওয়া উচিত্".

একটি প্রশ্ন এসেছিল বেলোরাশিয়া থেকে. তাতে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল, কেন রাশিয়া বেলোরাশিয়ার "বাপ"কে রাগিয়ে দেয় – প্রসঙ্গতঃ মনে হয়, এটা আলেকজান্ডার লুকাশেঙ্কো কে মনে করেই করা হয়েছিল. রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী একই রকম অর্ধ কৌতুকের সুরে উত্তর দিয়েছেন যে, বেলোরাশিয়ার নেতৃত্বে কখনো কখনও বেশী করেই বঙ্কিম ব্যবহার করে থাকেন, তবে তিনি নিজে কোন সময়েই এই প্রজাতন্ত্রের সরকারের নেতৃত্বের বিরুদ্ধে ব্যঙ্গ করেন নি. বরং পুতিন বেলোরাশিয়ার রাশিয়ার সঙ্গে অর্থনৈতিক সমাকলনের নির্দিষ্ট পথ ধরে চলাকে অভিনন্দন জানান, তিনি বলেছেন:

"আমরা বেলোরাশিয়ার জনগনের প্রতি খুবই মর্যাদার সঙ্গে ব্যবহার করে থাকি. আর সমস্ত কিছুই, যা রাশিয়ার তরফ থেকে কয়েক দশক ধরে বেলোরাশিয়ার অর্থনীতিকে সাহায্য করার জন্য করা হচ্ছে, তাদের সামাজিক ব্যবস্থার জন্যও করা হচ্ছে, তা হচ্ছে বেলোরাশিয়ার জনসাধারনের স্বার্থ রক্ষার জন্যই. আর কিছু কম করা হচ্ছে না. তাই যদি বলা হয় যে, রাশিয়া সঠিক আচরণ করছে না, - তবে বলতে হবে যে, এই ধরনের প্রশ্নের কোন রকমেরই ভিত্তি নেই".

প্রাক্তন অতি বিত্তবান ও "ইউকস" কোম্পানীর মালিক মিখাইল খদরকোভস্কির ভবিষ্যত নিয়ে একজন ইরকুতস্ক শহরের মহিলা প্রশ্ন করেছিলেন. মনে করা হয়ে থাকে যে, এই বিষয়ে দেশের নেতৃত্বের পক্ষ থেকে প্রায় কোন রকমের মন্তব্যই করা হয় না. কিন্তু এই প্রশ্ন ভ্লাদিমির পুতিনকে একেবারেই অসুবিধায় ফেলে নি. তিনি তার উত্তরে বিখ্যাত রুশ সিনেমার নায়কে গ্লেব ঝেগলভ এর উক্তি দিয়ে উত্তর দিয়েছেন: "চোরের উচিত্ হল জেলে থাকা". তিনি যোগ করেছেন:

"খদরকোভস্কির নামে অভিযোগ করা হয়েছে লুঠ করার, তার মধ্যে এই লুঠ বিশাল অঙ্কের. এখানে কথা হচ্ছে, কর ফাঁকি ও লোক ঠকানোর, আর তার পরিমান হল বহু হাজার কোটি রুবল. এটাও সত্য যে, তার নিজের দিক থেকেও কর ফাঁকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে, যেটাও খুবই গুরুত্বপূর্ণ".

অন্যান্য দেশের বিচার ব্যবস্থার উদাহরণ হিসাবে পুতিন আমেরিকার কুখ্যাত বিনিয়োগ ব্যবসায়ী বার্নাড ম্যাডফের ভাগ্যের কথা বলেছেন. আদালতের রায়ে তাকে একশ পঞ্চাশ বছরের জেল খাটার শাস্তি দেওয়া হয়েছে, আর তা মকুব করতে তার হাজার কোটি ডলার কোন সাহায্যই করতে পারে নি.

রাশিয়াতে স্বাস্থ্য ও খেলাধূলার উন্নতির ভূমিকাকে প্রধানমন্ত্রী বিশেষ করে দেখেছেন. সরকার এখন দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে চিকিত্সা কেন্দ্র তৈরী করার পরিকল্পনাকে বাস্তবায়িত  করছেন ও যে সমস্ত কোম্পানী প্রতিবন্ধীদের কর্ম সংস্থান করছেন, তাঁদের সাহায্য করতে চাইছেন. আগের মতই সুস্থ ভাবে বাঁচা নিয়ে গণ অভিমত গঠনের প্রচেষ্টা প্রাথমিক কাজের মধ্যে থাকছে আর জনতাকে খেলাধূলার বিষয়ে উত্সাহিত করা হচ্ছে. ২০১৪ সালে রাশিয়াতে শীত অলিম্পিক এবং ২০১৮ সালে বিশ্বকাপ ফুটবল আয়োজনের বিষয়ে দেশের বিজয় যে দেশের ইউরোপীয় অংশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য বিশাল এক গতিবেগ নিয়ে আসবেই তা প্রধানমন্ত্রী বিশ্বাস করেন.

প্রশ্ন সমেত যে ফাইলটি প্রধানমন্ত্রীকে দেওয়া হয়েছিল, তিনি মাঝেমাঝেই তা দেখছিলেন, সেখানে "রেডিও রাশিয়া"র জাপানের শ্রোতাদের কাছ থেকে আসা একটি খবর ছিল. তাঁরা কুরিল উপদ্বীপ অঞ্চলের ভবিষ্যত নিয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন, যা কয়েকদিন আগেই মস্কো ও টোকিওর মধ্যে সাময়িক ভাবে সম্পর্ক খারাপ হওয়ার কারণ হয়েছিল. ভ্লাদিমির পুতিন কায়দা করে উত্তর দিয়েছেন: তিনি ভালবাসেন দ্বীপ, আরও তার সঙ্গে পছন্দ করেন জাপানের সংস্কৃতি ও রন্ধন শৈলী.

শেষ একটি প্রশ্ন ছিল এই রকম:

"দেশের নিয়ন্ত্রণ কার হাতে থাকে, যখন আপনি ও রাষ্ট্রপতি দুজনেই ঘুমোন? আমরা পালা করে ঘুমোই. সব কিছুই নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রয়েছে, কাজেই সন্দেহ করবেন না".

বেশ কয়েক ঘন্টা ধরে কথা চলার পরে প্রধানমন্ত্রী স্বীকার করেছেন যে, তাঁর জন্য সবচেয়ে কঠিন প্রশ্ন ছিল পরিবহন ও ক্ষুদ্র ব্যবসার উপরে আরোপিত কর সংক্রান্ত প্রশ্ন গুলি. আর শেষ হয়ে আসা বছরের সবচেয়ে কঠিন সময় বলতে তিনি মনে করেছেন আগে কখনও না হওয়া দাবানল ও খরা.