দিমিত্রি মেদভেদেভ ও ভ্লাদিমির পুতিনের জোড় কতদিন টিকবে? আজকের দিনের রাশিয়াতে প্রশাসন কি সফল? এই প্রশ্ন গুলির উত্তর দিয়েছেন রাশিয়ার জনসাধারন, যাঁরা সারা রাশিয়া সামাজিক মত অনুসন্ধান কেন্দ্র আয়োজিত সামাজিক পরিসংখ্যানে অংশ নিয়েছিলেন.

    দুই তৃতীয়াংশ লোক মনে করেন যে, দিমিত্রি মেদভেদেভ ও ভ্লাদিমির পুতিনের সম্মিলিত ভাবে দেশের পরিচালনা নিজের অস্তিত্ব প্রমাণিত করতে পেরেছে এবং তা দীর্ঘস্থায়ী হওয়ার মতো চরিত্র প্রকাশ করেছে. এই দৃষ্টিকোণ কে সমর্থন করেছেন বর্তমানের প্রশাসনের দল ঐক্যবদ্ধ রাশিয়ার সমর্থকেরা, যুব সমাজের প্রতিনিধিরা, সমৃদ্ধ রুশী লোকেরা. তাঁরা বেশীর ভাগ ক্ষেত্রেই দুই রাজনীতিবিদের যৌথ কর্মে সাফল্য ও জনসাধারনের জীবন যাত্রার মানোন্নয়নের কথা বলেছেন.

    এই জোড় সাফল্য প্রদর্শন করতে পেরেছে, বলে মনে করেন রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক তথ্য বিনিময় সংস্থার জেনেরাল ডিরেক্টর দিমিত্রি অরলোভ, তিনি বলেছেন:

    "দেখাই যাচ্ছে যে, ক্ষমতাশালী জোড় একক সর্ব শক্তিমান রাষ্ট্রপতির থেকে অনেক বেশী জটিল, তাঁদের বিভিন্ন ধরনের স্বার্থের কথা বেশী করে মাথায় রাখতে হয় আর, পরিণতি হিসাবে বেশী সফলও বটে. মানুষে এই কথা বুঝতে পারেন ও বিশ্বাস করেন যে, দুই জন শক্তিশালী রাজনীতিবিদ আছেন ও তাঁরা সমানে কাজ করে চলেছেন. আর এটা ভাল প্রতিফলন ও তৈরী করে. বিশেষ করে যখন এই জোড়ের কাজ লক্ষ্যনীয়. সঙ্কট নিরোধে কর্মসূচী, বেকারত্ব প্রতিরোধের জন্য বিধান, সামাজিক রাজনীতির বিষয়ে সফল ভাবে কাজ করছে. আমার দৃষ্টিকোণ থেকে, জোড় বর্তমানে অভিযোজিত হয়ে রাজনৈতিক জোটে পরিনত হয়েছে. আর এটা রাশিয়ার রাজনীতিতে একটি স্থায়ী বাস্তব, যা ইতিবাচক প্রভাব বিস্তার করেছে".

    একই সঙ্গে, সারা রাশিয়ার জনমত পরিসংখ্যানের ফলে দেখা গিয়েছে দেশের শতকরা পনেরো শতাংশ লোক দেশের রাষ্ট্রপতি ও প্রশাসনের সভাপতির জোড়কে সবল বলে মনে করেন না. এই মত অবলম্বন করেছেন বিরোধী পক্ষের সমর্থকেরা, বয়স্ক মানুষেরা ও যাঁরা গরীব. রাশিয়াতে যাঁদের প্রশ্ন করা হয়েছিল, তাঁদের মধ্যে শতকরা ৪২ ভাগ মনে করেন যে, দেশের নেতৃত্বে রয়েছেন "মর্যাদা করার মতো রাজনীতিবিদেরা, যাঁরা দেশকে সঠিক দিকে নিয়ে যাচ্ছেন". একই সঙ্গে ১৬ শতাংশ উত্তর দাতা মনে করেন যে, এঁরা কম অভিজ্ঞতা সম্পন্ন লোক, যাঁরা জানেন না, দেশকে কি করে অর্থনৈতিক সঙ্কট মুক্ত করা দরকার.

    সব মিলিয়ে জোড়ের কাজ অসফল হয়েছে বলেছেন শতকরা ১৮ শতাংশ উত্তর দাতা. তাঁরা বলেছেন সবার আগে, দ্রব্য মূল্য বৃদ্ধি, মুদ্রাস্ফীতি ও অর্থনৈতিক সঙ্কট সম্বন্ধে. এক বছর আগে রুশ লোকেরা সবচেয়ে বেশী অভিযোগ করেছিলেন জনগনের জীবন যাত্রার মান কমে যাওয়া নিয়ে.

    আগ্রহের বিষয় হল, রাশিয়ার লোকেদের, যাঁরা জোড়ের কাজকে ইতিবাচক মূল্যায়ণ করেছেন, তাঁদের মতের পিছনের ধারণার পরিবর্তন হয়েছে. যদি আগে এই দলের একসাথে কাজের প্রকৃতিকে তাঁরা সাফল্যের প্রমাণ বলে মনে করে থাকেন, তবে বর্তমানে দেশের প্রশাসনের উচ্চ পদস্থ লোকেদের কাজের সাফল্য তাঁরা দেখছেন জীবন যাত্রার মানের উন্নতি এবং দেশের স্থিতিশীলতায়. সফল কাজের প্রমাণের মধ্যে – রাশিয়ার প্রশাসনের সামাজিক রাজনীতিতে মনোযোগ, সঙ্কট নিরোধের কর্মসূচীর রূপায়ণ ও রাশিয়ার আন্তর্জাতিক সমাজে মর্যাদা বৃদ্ধি রয়েছে.