ভারতে নির্মীয়মান প্রথম পারমাণবিক সাবমেরিন “আরিহন্ত” দেশের নৌবাহিনীতে গৃহীত হবে ২০১১ সালের শেষ- ২০১২ সালের গোড়ায়. এ সম্বন্ধে জানিয়েছেন ভারতের নৌবাহিনীর সদর দপ্তরের অধিকর্তা অ্যাডমিরাল নির্মল ভার্মা. এ সাবমেরিনটির জল অপসারণ ক্ষমতা প্রায় ৬ হাজার টন এবং তা বহন করবে ১২টি “কে-১৫” মার্কা ব্যালিস্টিক রকেট, পারমাণবিক ওয়ারহেডের তত্পরতার ব্যাসার্ধ ৭০০ কিলোমিটার. ভারতের “হিন্দুস্তান টাইমস” পত্রিকা আজ ভারতীয় নৌবাহিনীর অধিনায়কের কথা উদ্ধৃত করে লিখেছে, “এই পারমাণবিক সাবমেরিনটি নৌবাহিনীতে যুক্ত হলেই ভারত জলে-স্থলে-আকাশে পারমাণবিক অস্ত্রাধিকারী দেশ হয়ে উঠবে”. সাবমেরিনটি জলে নামানো হয়েছিল গত বছরের জুলাই মাসে. সে সময় থেকে সাবমেরিনে পরীক্ষা করা হচ্ছে তার গঠনবিন্যাস, প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ও সরঞ্জামের সংযোজন এবং খোলা সাগরে তার পরীক্ষা. ভারতীয় প্রচার মাধ্যমের তথ্য অনুযায়ী, দেশের নৌবাহিনী আরও দুটি এ রকম সাবমেরিনের ফরমাশ দিয়েছে. দীর্ঘমেয়াদী পরিপ্রেক্ষিতে ভারতের নৌবাহিনীতে মোট পাঁচটি পারমাণবিক স্ট্র্যাটেজিক সাবমেরিন রাখার পরিকল্পনা আছে.