দালাই লামা মনে করেন যে, ২০১২ সালে পৃথিবী ধ্বংস হবে না. রাশিয়া এক মহান দেশ, যেখানে তিনি আবার আসতে চেয়েছেন. ধর্মশালা নামের জায়গায় নিজের বাস ভবনে উপস্থিত সাংবাদিকদের এক সাক্ষাত্কারে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের নেতা এই দুটি ঘোষণা করেছেন.

    সাংবাদিকদের সঙ্গে সাক্ষাত্কার রাশিয়ার বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের সাথে ধর্মীয় নেতার তিন দিন ব্যাপী এক কথাবার্তার শুরুতে হয়েছে. গত বছরে প্রথম এই ধরনের সাক্ষাত্কার ধর্মশালা নামের জায়গায় আয়োজন করা হয়েছিল গত বছরে. এবারে দালাই লামার কাছ থেকে উপদেশ পাওয়ার জন্য রাশিয়া থেকে ভারতে এসেছেন প্রায় এক হাজারেরও বেশী বৌদ্ধ. ধর্মশালায় দালাই লামার সঙ্গে সাক্ষাত্কার (এ গুলিকে বলা হয়ে থাকে প্রশিক্ষণ) করতে এই প্রথমবার রাশিয়া থেকে এত বেশী তীর্থ করতে যাওয়া বৌদ্ধ লোক এসেছেন. তীর্থ যাত্রীরা প্রায় সকলেই রাশিয়ার ঐতিহ্য অনুযায়ী বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী অঞ্চল কালমীকি, তুভা ও বুরিয়াতি রাজ্য থেকে এসেছেন.

    স্বর্গীয় বিষয় সম্বন্ধে চতুর্দশ দালাই লামা একজন ধর্মীয় নেতার মতই যথেষ্ট আত্মবিশ্বাস নিয়ে বলেছেন. লাতিন আমেরিকার মায়া রেড ইন্ডিয়ান সভ্যতার ভবিষ্যদ্বাণী অনুযায়ী ২০১২ সালে বিশ্ব ধ্বংস হতে পারে এই মত সম্বন্ধে ধর্ম গুরুর মত হল যে এটা সন্দেহ করার মতো ধারণা. তিনি বলেছেন যে, "আমি এতে বিশ্বাস করি না".

    কিন্তু যদি মায়া ক্যালেণ্ডার অনুযায়ী আমাদের জীবনের উপরে প্রভাবের প্রশ্নে তিব্বতের নেতার কোন দ্বিমত নাও থাকে, তবে ধর্ম গুরু হিসাবে রাশিয়াতে আসার বিষয়ে তিনি শুধু নিজের সম্ভাবনার সম্বন্ধেই বলেছেন. রাশিয়ার সরকার তাঁকে আসার অনুমতি দিলে, তিনি আসতেই পারেন. দালাই লামা উল্লেখ করেছেন যে, "যতদিন না মস্কো এই বিষয়ে সবুজ সঙ্কেত দিচ্ছে, ততদিন এটা হবে না".

    এই বছরের গরমে কিছু বিদেশী সংবাদ মাধ্যম তাড়াহুড়ো করে খবর রটিয়েছিল যে, রাশিয়া দালাই লামাকে রাশিয়াতে আসার বিষয়ে সবুজ সঙ্কেত দিতেই পারে ও এই বিষয়ে তারা ভারতে স্থিত রুশ রাজদূত আলেকজান্ডার কাদাকিন বলেছেন বলে উল্লেখ করেছিল. কিন্তু আসলে এই সব মাধ্যমের সাংবাদিকেরা তাদের ইচ্ছাকে সত্য বলে প্রচার করেছিল. আমাদের রেডিও স্টেশন রেডিও রাশিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে রাজদূত বলেছেন:

    "রাশিয়ার এই প্রশ্নে অবস্থান অপরিবর্তিত রয়েছে. বর্তমান পরিস্থিতিতে আমরা দালাই লামাকে ভিসা দিতে পারি না, কারণ দুঃখের হলেও তাঁর ধর্মীয় কাজের সঙ্গে রাজনীতিকে জড়িয়ে ফেলা হচ্ছে. তাঁর চারপাশে লোকেরা রয়েছে, যারা তাঁর রাশিয়া সফরকে রাজনৈতিক রঙ দিতে চায়. আমাদের কথা এখানে খুব পরিস্কার আর তাতে কোন বদল হয় নি. আমাদের চিন প্রজাতন্ত্রের সঙ্গে গভীর ও গুরুত্বপূর্ণ স্ট্র্যাটেজিক সহযোগিতার সম্পর্ক রয়েছে, আর আমরা সেটাকে ম্লান করতে চাই না. তাই আমরা দালাই লামাকে পরামর্শ দিয়েছি বেইজিং এর সঙ্গে সম্পর্ক ভাল করতে ও কোন রকমের রাজনৈতিক কাজকর্ম না করতে".

    দালাই লামা সব দেখে শুনে মনে হয়েছে যে, রাজনৈতিক ছোঁয়ার সম্বন্ধে বোঝেন. তাই তেনজিন গ্যাথ্সো দার্শনিক মন নিয়ে দেখছেন এই সব. টুইটার সাইটে নিজের ক্ষুদ্র ব্লগে রুশ তীর্থ যাত্রীদের সঙ্গে প্রশিক্ষণ শুরু হওয়ার প্রথম দিনে তিনি এই রকম একটা মন্তব্য লিখেছেন: "আমাদের এই রকম দৃষ্টিভঙ্গী থাকা উচিত্ যে, আমার সুখী হওয়ার অধিকার অন্য যে কোন লোকের সুখী হওয়ার অধিকারের চেয়ে কোন অংশে কম নয়".