দেশের লোকসভা ও বিধানসভার সঙ্গে আলাপ-আলোচনার এই ধরনটি ঐতিহ্য মেনেই হয়ে চলেছে. প্রথম রাষ্ট্রপতির ভাষণ রাশিয়াতে হয়েছিল ১৯৯৪ সালে. দেশের নেতার ভাষণ – দেশের আভ্যন্তরীণ রাজনীতির প্রধান বাত্সরিক অনুষ্ঠান. এই ভাষণে অদূর ভবিষ্যতের জন্য দেশের আভ্যন্তরীণ ও পররাষ্ট্র নীতির স্ট্র্যাটেজিক বা মূল সূত্র স্থির করা হয় ও তা সামগ্রিক ভাবে সারা দেশের লোকের জন্যই করা হয়ে থাকে.

জাতীয় সভার উদ্দেশ্যে ভাষণ – রাষ্ট্রপতির সাংবিধানিক দায়িত্ব. এই ভাষণ তৈরী করার সময়ে রুশ দেশের প্রধান বিশেষজ্ঞরা, সামাজিক জোটের প্রতিনিধিরা ও ব্যবসায়ী সমিতির প্রতিনিধিরা অংশ নিয়ে থাকেন. দলিল তৈরীর সময়ে সাধারন মানুষের মতকেও বিবেচনা করা হয়ে থাকে, যা তাঁরা খুবই সক্রিয় ভাবে ক্রেমলিনের সরকারি সাইটে ব্যক্ত করে থাকেন.