রাশিয়ায় নভেম্বর মাসের শেষ রবিবার মা দিবাস পালিত হয়.বিভিন্ন দেশের ক্যালেন্ডারের পাতায় এই দিবসের উল্লেখ রয়েছে এবং পালিত হয় তা বিভিন্ন তারিখে.দিবসের মূলবানী সব স্থানেই অভিন্ন-মহিলা তথা মায়ের প্রতি ঐতিহ্যগত কোমল সম্পর্ক এবং পরিবারের তা বজায় রাখা.একই সাথে সমাজবিজ্ঞানীরা সংকেত প্রদান করেন যে, বিশ্বে মায়ের সংখ্যা ক্রমশই হ্রাস যাচ্ছে.

আধুনিক সমাজে শিশু ভূমিষ্ট হওয়া যা সর্বদা দীর্ঘপ্রতিক্ষার আকর্ষনীয় ঘটনা বা অনেক আনন্দ বয়ে আনে না.এমনকি এই আনন্দটুকো অনকে সময় স্থগিত রাখা হয় এবং কখনও একেবারেই তা থেকে পরিত্রান পেতে চায়.বিগত ৫০ বছরে বিশ্বে শিশু জন্মের হার ২ ভাগ হ্রাস পেয়েছে.তবে রাশিয়ায় শিশু ভূমিষ্টের চিত্রের পরিবর্তন এসেছে এবং শিশুবিহীন পরিবারের সংখ্যা এখন অনেক কমেছে.বললেন রাশিয়ার বিজ্ঞান একাডেমীর সামাজিক-রাজনৈতিক গবেষনা ইন্সটিটিউটের বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা প্রফেসর লেওনিদ রিবাকোবস্কী.তিনি বলেন-আজ আমরা এমন একটি সঙ্কটময় পরিস্থিতির মধ্যদিয়ে যাচ্ছি,যেখানে ধারাবাহিকভাবে জনসংখ্যার পরিবর্তনের ঢেউ শুরু হয়েছে.১৯৮০ সালের দিকে ২ কোটি ৫ লাখ শিশু জন্মগ্রহন করে এবং পরবর্তিতে তা অস্বাভাবিক হারে হ্রাস পায়. ১৯৯০ সালে এই সংখ্যা গিয়ে দাড়ায় ১ কোটি ৩ লাখে ও ১৯৯৯ সালে  ১ কোটি ২ লাখ শিশু জন্মগ্রহন করে.এখনও কেউ কেউ সন্তান নিচ্ছেন কিন্তু আগামী ৫-৭ বছর পর হয়ত কেউই সন্তান নিবেন না.রাশিয়ায় শিশু জন্মহারের মডেলের ধারাবাহিকভাবে পরিবর্তন আসছে.পরিবার প্রথমত স্বছল হওয়ার পরই সন্তান নিচ্ছে এবং ৩৫-৪০ বছর বয়সে সন্তান ভূমিষ্টের আর ইচ্ছা থাকে না কারণ সন্তান ভূমিষ্টের জন্য তা উপযুক্ত সময় না.

সেই দিক থেকে এক জরিপে দেখা যায় যে, রাশিয়ার অধিকাংশ যুবক-যুবতীরা জানায়,পরিবারে ২ থেকে ৩টি শিশু থাকা দরকার.দুই তৃতীয়াংশ  যুবক-যুবতীরা ২টি শিশুর আশা করেন এবং ৩টি শিশুর জন্য তা প্রায় ২০ ভাগ.পরিসংখানের দিকে তাকালে দেখা যায় যে,রাশিয়ার অধিকাংশ পরিবারে সন্তানের সংখ্যা ১টি এবং শুধুমাত্র ১০ ভাগ পরিবারে তিনটি বা এর অধিক সন্তান রয়েছে.নানবিধ সমস্যার পূর্বের ভয়-ভীতি কাটিয়ে প্রকৃতির ইচ্ছায় মা হওয়া যায়.সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গি ও ইচ্ছাকে দূরে সরিয়ে দিয়ে মহিলাকে মা হতে হয় এবং সব কিছুর জন্যই তার পৃথিবাতে আসা.বললেন লেওনিদ রিবাকোবস্কী.তিনি বলেন-পরিবারের সংস্কৃতির পূনর্জন্ম হওয়া প্রয়োজন যেন গনমাধ্যম পরিবারের বিপক্ষে অবস্থান না নিয়ে বরং তার পক্ষে অবস্থান নেয়.জন্মহারের সংখ্যা বৃদ্ধির হার পরিবর্তনের জন্য বাড়তি আরও কিছু পদক্ষেপ নেওয়া যেতে পারে.উদাহরনস্বরুপ-আপনি ৩৫ বছরে বিবাহ করেছেন তাহলে আপনার জন্য বরাদ্ধ হবে ১০০ রুবল,যদি ৩০ বছরে তাহলে ৫০০ রুবল এবং ২৫ বছরের জন্য তা হতে পারে ১০,০০০ রুবল.আমাদের দেশ অদ্বিতীয়,এর জনসংখ্যা হ্রাস করার অধিকার আমাদের  নেই.

বিগত বছরগুলোর মধ্যে গতবছরই রাশিয়ায় জন্মহার প্রথমবারের মত ডেড লাইন অতিক্রম করেছে.রাশিয়ার ৫ কোটি নারী আজ মা এবং এদের মধ্যে প্রায় ২ কোটি মায়ের শিশুর সংখ্যা দুই বা দুইয়ের অধিক.শিশু পরিচর্যা ও পারিবারিক ঐতিহ্য বজায় রাখার বিশেষ অবদানের জন্য এদের অনেকেই রাষ্ট্রীয় পুরষ্কারে ভূষিত হয়েছেন.এমনকি রাশিয়ায়‘চমত্কার পিতামাতা’ শীর্ষক পুরষ্কারও চালু হয়েছে.