রাশিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্থানে একসাথে মাদক বিরোধী কাজকর্ম চালিয়ে যাবে. এই বিষয়ে রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় মাদক নিয়ন্ত্রণ পরিষদের প্রধান ভিক্তর ইভানভ জানিয়েছেন. তিনি মস্কো শহরে যৌথ নিরাপত্তা সংস্থার বেআইনি মাদক কারবার সংক্রান্ত যোগাযোগ সভার বৈঠকে বক্তৃতা দিয়েছেন.

   গত মাসের শেষে রাশিয়া এবং আমেরিকার বিশেষ বিভাগ এই প্রথমবার গত মাসে একসাথে মাদক তৈরীর ল্যাবরেটরী ধ্বংস করার কাজ করেছে. ফলে প্রায় এক টন হেরোইন নষ্ট করা সম্ভব হয়েছে.  এই সম্মিলিত অপারেশন দেখিয়ে দিয়েছে যে, জাতীয় সীমান্ত পার হওয়া বিপদ আশঙ্কার সমস্যা সমাধান সমস্ত ইচ্ছুক পক্ষেরই একসাথে করা দরকার এবং তাই একমাত্র পথ, রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় মাদক নিয়ন্ত্রণ পরিষদের বিশেষজ্ঞ ইলনুর বাতীরশিন এই কথা মনে করে বলেছেন:

   “এখানে প্রশ্ন হল কি করে মাদক পাচার ধ্বংস করার ব্যবস্থা তৈরী করা যায়, যা বর্তমানে কোন একটি দেশের সীমান্তের মধ্যেই আর আবদ্ধ নেই. কোন একটি দেশ একাই এই সমস্যা সমাধান করতে অপারগ. এখানে প্রয়োজন হবে মাদক বিরোধী কূটনীতি ব্যবস্থা সাজানোর, বিভিন্ন দেশের মধ্যে পারস্পরিক যোগাযোগ তৈরী করার. আর কয়েকদিন আগের রাশিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং আফগানিস্থানের সরকারের সম্মিলিত ভাবে করা অপারেশনে সেই দেশে চারটি মাদক তৈরীর ল্যাবরেটরি ধ্বংস, এই সফল কূটনীতির প্রমাণ”.

   কিন্তু সব মিলিয়ে বিভিন্ন দেশের মধ্যে মাদক পাচার ধ্বংস করার পারস্পরিক কাজের ব্যবস্থা এখনও ঠিক করে সাজিয়ে তৈরী করা হয় নি ও গুরুত্ব দিয়ে খুঁটিয়ে করা হয় নি. ন্যাটো জোটের আন্তর্জাতিক সেনাবাহিনী আফগানিস্থানে আফিমের চাষকে ধ্বংস করার ধারণাকে উত্সাহ ছাড়াই দেখছে. যতদিন তারা এই দেশে রয়েছে, তার মধ্যে আফগানিস্থানে আফিমের উত্পাদন কিছু মূল্যায়ণ অনুযায়ী ৪০ গুণ বেড়ে গিয়েছে. গত বছরে মধ্য এশিয়ার এই দেশে সারা বিশ্বে দশ বছর আগে যত উত্পাদিত হতো, তার থেকে দ্বিগুণ বেশী কড়া মাদক উত্পাদন করা হয়েছে.

   আফগানিস্থানের হেরোইনের বন্যা আজ ইউরোপীয় দেশ গুলিতে ঢেউ তুলেছে. ইউরোপীয় সংঘ বর্তমানে বিশ্বে আফিমজাত মাদক ব্যবহারে প্রথমস্থান নিয়েছে. আফিম রাশিয়ার জন্য, বিশেষ করে তার দক্ষিণের এলাকাগুলির জন্য মাথাব্যাথার কারণ হয়েছে.

   রাশিয়া এবং ইউরোপে আফিমের থেকে আয়ের পরিমান বিলিয়ন ডলারে গোনা হচ্ছে. আজ আর কারও কাছে গোপন নেই যে, মাদক - শুধু বিষই নয়, যা বিশ্বে বহু সহস্র লোকের মৃত্যুর কারণ. এটা আবার আন্তর্জাতিক রাজনীতির একটা যন্ত্রও. আফগানিস্থানের মাদক থেকে আয় করা বিলিয়ন ডলার খরচ করা হচ্ছে মধ্য এশিয়ার দেশ গুলিতে স্থিতিশীলতা নষ্ট করার জন্য, যাদের মধ্যে দিয়ে রয়েছে মাদক পাচারের প্রধান পথ গুলি. আফগানিস্থানের মাদক পাচার চক্র অর্থ দিয়ে সাহায্য করছে উত্তর ককেশাসের বিদ্রোহী যোদ্ধাদের আর ইউরোপ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সন্ত্রাসবাদী দলগুলিকে.

   আফগানিস্থানের মাদক পাচার চক্র, যা দেশের সীমান্ত পার হয়ে বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে, তার সমস্যা সমাধান করা সম্ভব কেবল মাত্র যোগাযোগের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ভাবে নেওয়া ব্যবস্থা দিয়ে. গত বছরে রাশিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ ও বারাক ওবামা বেঅইনি মাদক পাচার মোকাবিলার জন্য কার্যকরী কমিটি তৈরী করেছিলেন. মাদক ব্যবসা থেকে পাওয়া অর্থকে কালো থেকে সাদা করার বিরুদ্ধে সংযুক্ত ভাবে মোকাবিলা করা সম্বন্ধে চুক্তি করা সম্ভব হয়েছে. মস্কো এবং ওয়াশিংটন মাদক মাফিয়ার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সম্বন্ধে তথ্য বিনিময় করেছে. আপাগানিস্থানের মাদক পাচার চক্রের মোকাবিলা করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ হতে পারত ন্যাটো জোট ও যৌথ নিরাপত্তা চুক্তি সংস্থার মধ্যে সহযোগিতা স্থাপন করা, যা এর মধ্যেই প্রমাণ করেছে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ ও মাদক পাচারের বিপদের বিরুদ্ধে নিজের কার্যকরীতা.