জার্মানির হ্যামবুর্গে বিগত ৪০০ বছরেরও বেশি সময়ে জলদস্যুদের বিরুদ্ধে এই প্রথম আদালতী বিচার শুরু হয়েছে. অভিযুক্তদের কাঠগড়ায় – সোমালির দশ জন “জলদস্যু”. তদন্ত বিভাগ অনুমান করছে যে, এপ্রিল মাসে সোমালির এই জলদস্যুরাই ভারত মহাসাগরে দখল করেছিল কন্টেনারবাহী জার্মান জাহাজ তাইপান, কিন্তু তারা জাহাজের সেই অংশে ঢুকতে পারে নি, যেখানে আশ্রয় নিয়েছিল জাহাজের ১৫ জন কর্মী. জাহাজটিকে মুক্ত করেছিল হল্যান্ডের সামরিক ফ্রিগেড. সমস্ত জলদস্যুকে বন্ধী করা হয়, এবং এখন তাদের ১৫ বছরের কারাদন্ড হতে পারে. আদালতের রায় জানানো হবে ২০১১ সালের মার্চের শেষ দিকে. হ্যামবুর্গে জলদস্যুদের শেষ দুটি বিচার হয়েছিল প্রায় ১৬০০ সাল নাগাদ. ১৩৯০ থেকে ১৬০০ সালের মধ্যে এ শহরে মৃত্যুদন্ড দেওয়া হয়েছিল ৫০০-র বেশি “জলদস্যুকে”. সপ্তদশ শতকে জলদস্যুতা ইউরোপে আর উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালনকরে নি, এবং তাই এ রকম বিচার বন্ধ করে দেওয়া হয়.