জাপানের ইয়োকোহামায় এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের অর্থনৈতিক সহযোগিতা সংস্থার (এপেক)এর শীর্ষ সম্মেলন শেষ হয়েছে.সম্মেলনের চুড়ান্ত ঘোষণায় আগামী ২০১৫ সাল নাগাদ সম্মিলিত অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনের কৌশল বিষয়ে বর্ননা করা হয়েছে.এদিকে সম্মেলন স্থলের বাইরে এক হাজারেরও বেশি প্রতিবাদকারী বিক্ষোভ মিছিল করেছে,তদুপরি এপেক দেশসমূহ মুদ্রা নিয়ে প্রতিযোগিতা সৃষ্টি না করে  মুক্তবানিজ্যে আরও বেশি বিনিয়োগ দেওয়ার প্রতি অগ্রাদিকার দিয়েছেন এবং তা হয়ত বিশ্ব বানিজ্য সংস্থার নীতিগত বিষয়ের সাথে নাও মিলতে পারে.রাশিয়া আগামী ২০১২ সালে এপেক সম্মেলন আয়োজন করবে এবং তা অনুষ্ঠিত হবে রাশিয়ার দূরপ্রাচ্যের  রুস্কি দ্বীপে.রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেব ইয়োকোহামায় এ ঘোষণা দেন.রাশিয়া এই প্রথমবারের মত  এপেকের মত আঞ্চলিক অর্থনৈতিক সহযোগিতা সংস্থার শীর্ষ বৈঠক আয়োজন করতে যাচ্ছে.দিমিত্রি মেদভেদেব আরও বলেন এই সংস্থার উন্নয়নে রাশিয়া ইতিমধ্যে ৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বরাদ্ধ করেছে.রাশিয়া,চীন ও যুক্তরাষ্ট্রসহ বর্তমানে এপেকের সদস্য রাষ্ট্রের সংখ্যা ২১.এই এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলেই বিশ্বের ৫৩ ভাগ জিডিপি অর্জিত হয়.