তেলের পাইপলাইন “রাশিয়া-চীন” কাজ শুরু করছে পরীক্ষামূলক ভিত্তিতে. নভেম্বরে এ পাইপলাইন মারফত পাঠানো হবে আড়াই লক্ষ টন টেকনোলজিক্যাল তেল, আর ডিসেম্বরে- ৩ লক্ষ টন. বছরে দেড় কোটি টন পরিমাণে কমার্শিয়াল সরবরাহ শুরু হবে পয়লা জানুয়ারী থেকে. চীনের দিকে পূর্ব সাইবেরিয়া – প্রশান্ত মহাসাগর পাইপলাইন থেকে শাখা নির্মিত হয়েছে তেলের ক্ষেত্রে সহযোগিতা সংক্রান্ত আন্তঃসরকারী চুক্তির শর্ত অনুযায়ী. এ দলিল অনুযায়ী, “রসনেফত” ও “ত্রান্সনেফত” কোম্পানি চীনা পক্ষের কাছ থেকে ঋণ পাবে যথাক্রমে ১৫০০ ও ১০০০ কোটি ডলারের, ২০ বছর ধরে তেল সরবরাহের গ্যারান্টির বদলে. বিজিঙের কেন্দ্রাঞ্চলে গণ সভা ভবনে সেপ্টেম্বরে “রাশিয়া-চীন” তেলের পাইপলাইন নির্মাণ শেষ হওয়ার প্রতীকী সমারোহ হয়েছিল. তাতে অংশগ্রহণ করেছিলেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভ এবং চীনা গণপ্রজাতন্ত্রের সভাপতি হু জিনতাও.