মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কর্তৃপক্ষ ইয়েমেন থেকে শিকাগোতে বিস্ফোরক বস্তু ভরা পার্সেল পাঠানোর ব্যাপারে মুখ্য সন্দেহভাজনের নাম জানিয়েছে. তদন্তের মতে, এ ব্যক্তি হল ইব্রাহিম হাসান আল আসিরি – সৌদি আরবের নাগরিক, যার “আল-কাইদার” সাথে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ আছে. সে এ সংস্থার ইয়েমেন শাখার অন্তর্ভুক্ত, জানিয়েছে “বি.বি.সি” সংবাদ সংস্থা. মার্কিনী গোয়েন্দা বিভাগের প্রতিনিধি বলেন যে, বিস্ফোরক বস্তু নিয়ে কাজ করায় আল আসিরি-র আগেকার অভিজ্ঞতা এবং তার জীবনী সংক্রান্ত তথ্য তাকে এ ব্যাপারে মুখ্য সন্দেহভাজন বলে বিবেচনা করার ভিত্তি জোগায়. এ ব্যাপারে আরও দুজনকে সন্দেহ করা হচ্ছে. এর আগে ইয়েমেনের রাজধানী সানা শহরে বিস্ফোরক বস্তু ভরা পার্সেল পাঠানোর সন্দেহে একটি মেয়েকে গ্রেপ্তার করা হয়. এ সম্বন্ধে জানান তার উকিল আব্দেল রহমান বুরমান. মেয়েটির সাথে তার মা-কেও গ্রেপ্তার করা হয়. গ্রেপ্তারের একদিন পরে ইয়েমেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ২২ বছর বয়সী ছাত্রীকে মুক্ত করা হয়. তদন্তে নির্ধারিত হয়েছে, মেয়েটির “ব্যক্তিগত তথ্যাবলি” অন্য কেউ ব্যবহার করে থাকতে পারে “ইয়েমেনী পার্সেল” মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পাঠানোর সময়. মেয়েটির মায়ের ভাগ্য সম্বন্ধে কিছুই জানানো হচ্ছে না.