ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ে অনুষ্ঠিত রাশিয়া-আসিয়ান শীর্ষ সম্মেলনে চুড়ান্ত ঘোষনাপত্রে এশিয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে নিরাপত্তা ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে যৌথভাবে কাজ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে.সম্মেলনে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেব অংশগ্রহন করেন.

ঘোষণাপত্রে বলা হয়,রাশিয়া ও দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় জাতি সংস্থা (আসিয়ান)এশিয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে সম্মিলিতভাবে একটি আঞ্চলিক কাঠামো তৈরি করতে একমত প্রকাশ করেছে.এছাড়া আরও বলা হয় যে,আসিয়ানভুক্ত দেশসমূহে রাশিয়ার অর্থনৈতিক তহবিলকে সংস্থার পক্ষথেকে স্বাগত জানানো হয়.মূলত রাশিয়া-আসিয়ান প্রথম সম্মেলনে বিভিন্ন অর্থনৈতিক উন্নয়ন প্রকল্পে একসাথে কাজ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল.

আসিয়ান রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার পারমানবিক অস্ত্রহ্রাস সংক্রান্ত ‘স্টার্ট’ চুক্তিকে সম্পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছে. আসিয়ানভুক্ত দেশসমূহের শীর্ষনেতারা বলেন,এই ক্ষেত্রে আমরা পারমানবিক অস্ত্রের সরবরাহ বন্ধে ও এর ক্ষতিকর প্রভাব কমিয়ে আনার দৃষ্টান্ত উপস্থান করেছি.

ঐ ঘোষণাপত্রে আরও উল্লেখ করা হয় ,রাশিয়া ও আসিয়ানকে পারমানবিক ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন হুঁমকিকে অবশ্যই চুক্তিপত্রের ধারাবাহিকতার মাধ্যমে পারমানবিক অস্ত্রের সরবরাহ বন্ধে কাজ করতে হবে.দক্ষিন এশিয়াকে পারমানবিক অস্ত্রমুক্ত অঞ্চলে পরিনত করা হলে তা   আন্তর্জাতিক পরিসীমায় পারমানবিক অস্ত্রের ক্ষতিকর প্রভাবকে অনেকাংশ কমিয়ে আনবে.

শীর্ষনেতারা জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে একসাথে কাজ করার অভিব্যক্ত প্রকাশ করেন এবং রাষ্ট্রীয় আইনরক্ষাকারী বিভাগের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষায় ঐক্যমত প্রকাশ করেন.

আসিয়ানের শীর্ষনেতারা এই অঞ্চলে উন্নয়ন কার্যক্রম বৃদ্ধির লক্ষ্যে নানাবিধ ফোরাম আয়োজন করবে এবং রাশিয়া ও আসিয়ানভুক্ত দেশসমূহ আসিয়ান ও সাংঙ্গহাই সহযোগিতা সংস্থার সাথে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের বিভিন্ন বিষয়ে উন্নয়নে কাজ করবে.বিশেষভাবে,আসিয়ানের উদ্দোগে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় একটি অর্থনৈতিক সহযোগি সংস্থা গঠনের কার্যক্রমে সহায়তা প্রদান করা.সম্মিলিত ঐ ঘোষণাপত্রে বলা হয় যে,’আমরা শিল্প,মাঝারি ও ছোট ব্যাবসাকে উন্নয়ন এবং সেই সাথে জ্বালানী ক্ষেত্রে পাষ্পরিক অভিজ্ঞতার বিনিময়ের বিষয়ে পর্যালচনা করছি’.