ভারতের পশ্চিম বঙ্গে ১৮ই অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া ব্রিটেন ও ভারতের সামরিক বিমান বাহিনীর যৌথ মহড়া শেষ পর্যায়ে পৌঁছেছে. এই খবর দেওয়া হয়েছে ভারতের পূর্ব দিকের বিমান বাহিনীর দপ্তর থেকে. এই পর্যায়ে দুই দেশের পাইলটেরা এক সঙ্গে প্রতিপক্ষের হামলা প্রতিহত করা ও পাল্টা আক্রমণ করা শিখছে. একই সঙ্গে আকাশে অনেক গুলি বিমান উড়ছে, তার সঙ্গে রয়েছে দূর অবধি লক্ষ্য করার জন্য রেডিও তরঙ্গ ব্যবহার কারী বিমান. এই প্রশিক্ষণ চলবে ৩রা নভেম্বর পর্যন্ত. এই উপলক্ষে প্রকাশিত এক সংবাদ প্রচারে বলা হয়েছে যে, এবারের প্রশিক্ষণ আগে হওয়া সমস্ত "এক্স - ইন্দ্রধনুষ" মহড়ার চেয়ে অনেক বেশী কঠিন. দুই দেশের বিমান গুলি ২০শে অক্টোবর থেকে সম্মিলিত ভাবে উড়ান পরীক্ষা করছে. ভারত এই প্রশিক্ষণে "এস ইউ - ৩০এম কা ই", "মিরাজ – ২০০০", "মিগ – ২৭" বিমান, দূর থেকে রেডিও তরঙ্গের মাধ্যমে প্রতিপক্ষকে চিহ্নিত করার জন্য "ইল – ৭৬" ধরনের বিমানের কাঠামোর মধ্যে নির্মিত বিমান ইজরায়েলের অ্যাভিওনিক্স যন্ত্রপাতির সাহায্যে ব্যবহার করছে. ব্রিটেনের বিমান বাহিনী নিজেদের সঙ্গে এনেছে ফাইটার বিমান "ইউরো ফাইটার টাইফুন", লক্ষ্য করার জন্য বিমান "ই – ৩ডি" এবং আকাশে জ্বালানী ভর্তি করার জন্য উপযুক্ত "ভি সি – ১০". এই প্রশিক্ষণের সাঙ্কেতিক নাম "এক্স – ইন্দ্রধনুষ" (সংস্কৃত থেকে অনুবাদে ইন্দ্রধনুষ মানে ধনুক), বঙ্গ দেশের পশ্চিম মেদিনীপুরের কলাইকুন্ডা বিমান ঘাঁটিকে কেন্দ্র করে এই প্রশিক্ষণ হচ্ছে. প্রশিক্ষণ যাঁদের আয়োজনে হয়েছে, তাঁরা মনে করেছেন যে, এই ইন্দ্রধনুষ দুই দেশের বিমান বাহিনীকে একে অপরের বায়ু যুদ্ধের দর্শন সম্বন্ধে পরিচিত করতে সাহায্য করবে. এটা ভারতীয় বিমান বাহিনীকেও সাহায্য করবে কি করে সর্ব্বাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হয়. মহড়ার সময়ে ভারতীয় পাইলট এবং বিমান নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রের লোকেরা এক সঙ্গে অনেক বিমান কি করে নিয়ন্ত্রণ করতে হয়, তা শিখছেন.