রাশিয়ার বিশেষ আর্কটিক বাহিনী গঠনের অভিপ্রায় নেই এবং সাধারণভাবে  এ অঞ্চলের সামরিকীকরণ করতে চায় না, বলেছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিশেষ দায়িত্বপূর্ণ দূত আন্তোন ভাসিলিয়েভ. মস্কোয় এক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি জোর দিয়ে বলেন, আর্কটিক অঞ্চলের সামরিকীকরণ সংক্রান্ত সমস্ত কথার সাথে বাস্তবতার কোনো সম্পর্ক নেই. তিনি উল্লেখ করেন যে, রাশিয়া আর্কটিক শেল্ফের প্রলম্বন সংক্রান্ত অতিরিক্ত ভিত্তিমূলক দলিল প্রস্তুত করছে. ২০০৭ সালে আর্কটিক অঞ্চলে রাশিয়ার অভিযাত্রা এ প্রমাণ পেয়েছে যে, জলতলের লমোনোসোভ পর্বতশ্রেণী হল সাইবেরীয় কন্টিনেন্টাল প্ল্যাটফর্মেরই প্রলম্বিত অংশ. তা রাশিয়াকে আর্কটিকের যথেষ্ট অংশ দাবি করার অধিকার দেয়, যেখানে তেলের ভান্ডার, পূর্বাভাষ অনুযায়ী, সৌদি আরবের তেলের ভান্ডারের চেয়ে দুগুণ বেশি. অন্য দিকে, নিজের তরফ থেকে ফেডারেল আবহবিদ্যা ও পরিবেশ মনিটরিং বিভাগের প্রধান আলেক্সান্দর ফ্রলোভ সাংবাদিকদের জানান যে, তাঁর বিভাগ ২১শে সেপ্টেম্বর সরকারের আলোচনার জন্য পেশ করবে অ্যান্টার্টিকায় রাশিয়ার স্ট্র্যাটেজিক উপস্থিতির প্রশ্ন.