রাশিয়া ইয়ারোস্লাভল শহরের ১০০০ বছর পূর্তি উত্সবের সমাপনী অনুষ্ঠান শহরের  প্রধান মঠ উসপেনসকিতে ব্যপক জাঁকজমক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে আজ রবিবার ১২ শেষ হবে.ঐ অনুষ্ঠান পরিচালনা করবেন সর্বরাশিয়ার  অর্থডক্স মঠসমূহের প্যাট্রিক  ক্রিল.তিনি একই সাথে ‘’রুশি পুনর্জন্ম’’ শীর্ষক আধুনিক অর্থডক্স  খ্রিষ্টধর্মাবলম্বীদের শিল্প সাহিত্যের প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন. প্রদর্শনীর সমন্বকারী ইউলিয়া বেলবা বলেন,শুধুমাত্র উসপেনসকি মঠে এই প্রদর্শনীর আয়োজন করার কথা ছিল.তিনি বলেন-এই প্রদর্শনীর আয়োজনের চিন্তা করা হয় দেড় বছর পূর্বে.আমরা তখন আলোচনা করি যে প্রদর্শনীতে আমরা কিছু দূর্লব উপকরন দেখাতে চাই যা তৈরী করা হয়েছে গুনীশিল্পীদের দ্বারা.এগুলো সোভিয়েত আমলে উসপেনসকি মঠ থেকে খসে পরে এবং পরবর্তিতে তা  ইয়ারোস্লাভল শৈল্পিক জাদুঘরে সংরক্ষন করা হয়েছে.চলতি বছরে শহরের ১০০০ বছর পূর্তি উপলক্ষে সংস্কৃতি মন্ত্রনালয়  উসপেনসকি মঠকে তার  পুরান মডেলে রুপ দিতে চাচ্ছে.এই মঠের ২টি আইকনের দৈর্ঘ্য হচ্ছে ১৯৭ থেক ১৪০ সেন্টিমিটার.এর একটি স্রষ্টা মা টলগেস্কে ওএবং অন্যটি স্রষ্টা মা ইয়ারোস্লাভার.শুধুমাত্র এই আইকনই রুশি পুনর্জন্ম’’ প্রদর্শনীতে দেখানো হবে না,জানালেন ইউলিয়া বেলবা.তিনি বলেন-আমরা চেয়েছি সবাইকে আধুনিক অর্থডক্স  খ্রিষ্টধর্মাবলম্বীদের শিল্প সাহিত্যের সাথে পরিচয় করি দিতে.আমি নিজে ব্যক্তিগতভাবে পছন্দ করি ইয়ারোস্লাভের জয়ন্তী শিল্পী কারাত প্লুস,মস্কোর বিখ্যাত মারিন আমিরব.রাশিয়ার নারি চিত্রমালা একাডেমীর শিল্পী নিকোলায় মুহিনা মঠের অঙ্গসজ্জার শুধুমাত্র রাশিয়াতেই করেন নি ,তিনি একই সাথে সারবিয়া ও বুলগেরিয়াতেও করেছেন.তিনি সোভিয়েত ইউনিয়নের অনেক আগে থেকেই মঠে চিত্রমালা অংঙ্কন করেন.তিনিই প্রথম রাশিয়াতে ইয়ারোস্লাভ আইকন শীর্ষক চারু বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন.রেডিও রাশিয়াকে মুহিন বলেন-আমরা বিভিন্ন প্রক্লপ প্রতিষ্ঠা করি যার উদ্দেশ্য ছিল ইয়ারোস্লাভের মঠসমূহের পূনর্জন্ম দেওয়া,আইকনে লেখা এবং শিল্পীদের জ্ঞানদান করা.আমি কারুশিল্পীর কাজে নিয়োজিত ছিলাম.শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শেষ করেই আমি আইকনে কিভাবে লিখতে হয় তা শিক্ষা নেই এবং ঐ সময় কোথাও এ বিষয়ে পড়ানো হত না.আমরা প্রথম কাজ ছিল ইয়ারোস্লাভের তালগসকী মঠে.সেখানে আমরা চেষ্ঠা করেছিলাম ১৭ শতকের তালিকার অনুকরনে নিজেদের তালিকা তৈরী করা এবং পরে যখন তালগসকী মঠের কাজ অনেক প্রশংসা পায় তখনই আমাদের কাছে বিশপের বিভিন্ন প্রশাষনিক এলাকা এমকি বিভিন্ন দেশ থেকে শরনাপন্ন হতে থাকে.হয়তবা ইয়ারোস্লাভ আইকনের শিল্পীদের কারুকাজ যা উসপেনসকি মঠের পুনর্জন্মে অংশ নিবে.সত্যিই তা পাঁচ বছর পরে.ইয়ারোস্লাভল শহরের ১০০০ বছর পূর্তী উপলক্ষে এর প্রধান মঠটি খুলে দেওয়া হয়েছে যা পেয়েছে নতুন ও দীর্ঘ জীবন.